দীর্ঘসূত্রিতার কারণে শুরু হচ্ছে না আলোচিত পাঁচ মামলার বিচার
Thursday, 6th June , 2013, 12:46 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

দীর্ঘসূত্রিতার কারণে শুরু হচ্ছে না আলোচিত পাঁচ মামলার বিচার


ঢাকা,  ৬ জুন (লাস্ট নিউজ) : ডেস্ক রিপোর্ট : দীর্ঘসূত্রিতার ঘেরাটোপে পড়ে গতিহীন হয়ে পড়েছে দুদকের দায়ের করা আলোচিত কয়েকটি মামলার কার্যক্রম। প্রায় বছর অতিক্রম হতে চললেও এই মামলাগুলোর তদন্ত শেষ করতে না পারায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করতে পারেনি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ফলে সহসাই শুরু হচ্ছে না আলোচিত-সমালোচিত এই মামলাগুলোর বিচারকাজ। এ অবস্থায় মামলাগুলোর ভবিষ্যত নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। একই সঙ্গে ফৌজদারি অপরাধের এই মামলাগুলোর বিচার দ্রুত হওয়া উচিত বলে মনে করেন বিশিষ্টজনেরা। দ্য টাইমস

পদ্মাসেতু, ডেসটিনি, হলমার্ক, রেল ও শেয়ার বাজার কেলেঙ্কারি, এই পাঁচটি ঘটনা ছিল ২০১২ সালে ‘টক অব দ্যা কান্ট্রি’ (ব্যাপক আলোচিত)। ফৌজদারি কার্যবিধিতেও অনাবশ্যক দেরি না করে প্রত্যেক ফৌজদারি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের কথা উল্লেখ রয়েছে। অথচ ফৌজদারি কার্যবিধি অনুযায়ী একটি মামলা দায়েরের পর ১২০ কার্যদিবসের মধ্যে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিলের নিয়ম রয়েছে। তদন্ত কার্যক্রম শেষ করার বিষয়ে দুদকের আইনেও ৬০ দিনের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। এ আইন মানা হচ্ছে না। প্রত্যেকটি ঘটনায় মামলা দায়েরের পর প্রায় বছর গড়ালেও তদন্ত শেষ করে আদালতে অভিযোগপত্র দিতে পারেনি দুদক।

এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু বলেন, সবগুলো মামলার তদন্ত অথবা অনুসন্ধান কার্যক্রম চলছে। তড়িঘড়ি তদন্ত করে মামলার ক্ষতি হোক, দুদক তা চায়না। আর রাতারাতি কোন কিছুই করা সম্ভব নয়। দুদকের প্রত্যেকটি মামলাকে স্পর্শকাতর উল্লেখ করে এই কমিশনার বলেন, সঠিকভাবে সঠিক নিয়মে এসব মামলার তদন্ত অথবা অনুসন্ধানকাজ চলছে। তদন্ত শেষ হলেই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে।

পদ্মাসেতু দুর্নীতির মামলা
পদ্মাসেতুর পরামর্শক নিয়োগে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগে কয়েকজন ভিআইপির দিকে ইঙ্গিত থাকলেও প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে অনেক নাটকীয়তার পর তাদের বাদ দিয়ে গত ১৭ ডিসেম্বর সাবেক সেতু সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াসহ সাতজনের বিরুদ্ধে রাজধানীর বনানী থানায় মামলা করে দুদক।

এ মামলায় প্রায় ৬ মাস অতিবাহিত হলেও তদন্ত শেষ করতে পারেনি দুদক। তবে এ মামলার তদন্তের অংশ হিসেবে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করতে গত ১৯ মে কানাডা সফরে যায় দুদকের দুই সদস্যের প্রতিনিধি দল। তিন দিন পর এ মামলার প্রধান তদন্ত কর্মকর্তা মির্জা জাহিদুল ইসলাম দেশে ফিরে এলেও দুদকের আইন উপদেষ্টা অ্যাড. আনিসুল হক থেকে যান। ১০ দিন পর তিনিও গত ৩০ মে রাতে দেশে ফেরেন।

দেশে ফেরেই আনিসুল হক জানান, তারা কানাডা সফরে গিয়ে কোন তথ্য-প্রমাণ আনতে ব্যর্থ হয়েছেন। পাশাপাশি সে দেশে অবস্থিত মামলার গুরুত্বপূর্ণ তিন আসামিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব হয়নি। তবে তিনি জানিয়েছেন, তদন্তের কাজে তারা আবারও কানাডা সফরে যেতে পারেন। ফলে এই মামলায় সহসাই আদালতে চার্জশিট দেয়া সম্ভব নয়। এ মামলার আসামি সাবেক সেতু সচিব মোশাররফ ও সেতু কর্তৃপক্ষের নদী শাসন বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী কাজী মো. ফেরদৌস গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে গেলেও বর্তমানে তারা হাই কোর্টের আদেশে জামিনে রয়েছেন।

অপর আসামিরা হলেন- সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রিয়াজ আহমেদ জাবের ও ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড প্ল্যানিং কনসালট্যান্ট লিমিটেডের (ইপিসি) ডিএমডি মো. মোস্তফা, এসএনসি-লাভালিনের সাবেক পরিচালক মোহাম্মদ ইসমাইল, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট রমেশ সাহা ও কেভিন ওয়ালেস। শেষের তিনজন কানাডায় রয়েছেন।

ডেসটিনির অর্থ পাচার মামলা
প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ এনে মাল্টি লেভেল মার্কেটিং কোম্পানি (এমএলএম) ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) ২২ পরিচালকের বিরুদ্ধে গত বছরের ৩১ জুলাই দুটি মামলা করে দুদক। ডেসটিনির বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি প্রকল্প থেকে ২ হাজার ৩৭৫ কোটি টাকা পাচার এবং ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ অ্যাকাউন্ট থেকে ১ হাজার ৯ শ’ ৩৫ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে। মামলা করার পর দশ মাস পার হলেও তদন্ত শেষ করতে পারেনি দুদক। যে কারণে এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত হয়ে পড়েছে।

দুদকের করা এ মামলায় আসামির সংখ্যা ২২ জন। কারাগারে আছেন গ্রুপটির এমডি রফিকুল আমিন, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন এবং পরিচালক কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম। আর এ মামলায় জামিন নিতে এসে কারাগারে গিয়েছিলেন গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান হারুন অর রশীদ। তবে তিনি শর্ত-সাপেক্ষে হাই কোর্ট থেকে জামিনে রয়েছেন। বাকি পলাতক ১৮ আসামিকে গ্রেপ্তারের উদ্যোগ নেই দুদকের। এ মামলায় নিজেদের দোষ স্বীকার করে বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তি দেন ডেসটিনির এমডি রফিকুল আমিন, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন এবং পরিচালক দিদারুল আলম।

গত বছরের ২৭ নভেম্বর দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ডেসটিনি  গ্রুপের ৩৫ টি প্রতিষ্ঠানের সকল স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দেন আদালত। এ ছাড়া দুদকের পৃথক আরেকটি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ২ অক্টোবর এই  গ্রুপটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ৫৩৩ টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করারও নির্দেশ  দিয়েছিলেন আদালত।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুদকের এক কর্মকর্তা বলেন, আসামিদের এ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আসামিরা দ্রুত অবস্থান পরিবর্তন করায় গ্রেপ্তার সম্ভব হচ্ছেনা বলেও জানান এই কর্মকর্তা। মামলার অভিযোগপত্রের ব্যাপারে দুদকের এই কর্মকর্তা বলেন, ডেসটিনির এ দুই মামলায় দ্রুত অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে। তবে কবে দাখিল করা হবে তা জানাতে পারেননি এই কর্মকর্তা।

হলমার্কের ঋণ জালিয়াতি
রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক থেকে ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে বেসরকারি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান হলমার্কের প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার ঘটনা ছিল গত বছরের ব্যাপক আলোচিত ঘটনা। ব্যাংক কেলেঙ্কারির এ ঘটনায় হলমার্কের এমডি ও চেয়ারম্যানসহ মোট ২৭ জনের বিরুদ্ধে গত বছরের ৪ অক্টোবর রমনা মডেল থানায় মামলা করে দুদক। এ ঘটনায় এক হাজার ৫৬৮ কোটি ৪৯ লাখ ৩৪ হাজার ৮৭৭ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে। এ মামলায়ও দুদকের তদন্ত শেষ না হওয়ায় আদালতে চার্জশিট দেয়া সম্ভব হয়নি। কবে নাগাদ অভিযোগপত্র দেয়া হবে সে বিষয়েও কেউ কিছু বলতে পারেননি। স্থবির হয়ে পড়েছে মামলার কার্যক্রম।
আসামির তালিকায় হলমার্ক গ্ গ্রুপের সাত কর্মকর্তা ও সোনালী ব্যাংকের ২০ কর্মকর্তা রয়েছেন। এর মধ্যে এ কেলেঙ্কারির মূলহোতা হলমার্ক গ্র“পের এমডি তানভীর আহমেদ, তার স্ত্রী চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলাম, ম্যানেজার তানভীরের ভায়রা তুষার আহম্মেদ, সোনালী ব্যাংকের সাবেক ডিজিএম একেএম আজিজুর রহমান, সোনালী ব্যাংকের জিএম মীর মহিদুর রহমান, দুই ডিজিএম শেখ আলতাফ হোসেন ও শফিজ উদ্দিন আহমেদ গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন। এ মামলায় ২৭ আসামির মধ্যে গ্রেপ্তার আছেন মাত্র সাত জন। মামলা করার পর সাত মাস পার হলেও পলাতক বাকি ২০ আসামিকে গ্রেপ্তার করতে ব্যর্থ হয়েছে দুদক। গত বছরের ১৮ অক্টোবর ঋণ জালিয়াতির কথা স্বীকার করে বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তানভীর আহম্মেদ।

শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি

হাজার হাজার কোটি টাকার শেয়ার কেলেংকারির মূলহোতাদের বিরুদ্ধে দুদকের অনুসন্ধান ও তদন্ত থেমে গেছে। আইনি জটিলতায় এই কেলেঙ্কারির তদন্ত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শেয়ার দুর্নীতি করেও পার পেয়ে যাচ্ছেন শেয়ারবাজারের দরবেশ বাবারা। শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটে ২০১০ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে। আর দুদক মানিলন্ডারিংয়ের ঘটনা তদন্তের আইনগত ক্ষমতা পায় ২০১২ সালে। ফলে পূর্বের মানিলন্ডারিংয়ের বিষয়ে দুদকের অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছে না দুদক। এ অবস্থায় এই অপরাধসহ শেয়ারবাজার থেকে কারসাজি করে হাতিয়ে নেয়া অর্থ দেশে-বিদেশে পাচারকারী রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী ও প্রভাবশালীরা এখন স্বস্তিতেই আছেন।

জানা যায়, ২০১০ সালের ডিসেম্বর ও ২০১১ সালের জানুয়ারির শেয়ার কেলেংকারির ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যে মামলা দায়ের করে বিএসইসি, তাতে অভিযুক্ত ৫ বিনিয়োগকারীর বিরুদ্ধেও বিচারকাজ শুরু করতে পারছে না সরকার পক্ষ। গত বছরের ২১ আগস্ট ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে আরও দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। তবে তারও কোন বিচার-আচার নেই। এক কথায় আইনি জটিলতায় পড়ে দুদকের তদন্ত টিম তদন্ত বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে মামলার কার্যক্রম স্থবির রয়েছে।

রেলের অর্থ কেলেঙ্কারি
রেলে নিয়োগ বাণিজ্য ও অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষ সাক্ষী গাড়ি চালক আলী আজমের জবানবন্দি নিতে না পারায় ভাটা পড়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের অনুসন্ধান কার্যক্রমে। তবে আজমের জবানবন্দির জন্য এখনো অপেক্ষায় রয়েছে দুদকের এ সংক্রান্ত অনুসন্ধান কমিটি।
জানা যায়, রেলের নিয়োগ-বাণিজ্যের ৭০ লাখ টাকাসহ গত বছর ৯ এপ্রিল বিজিবি সদর দপ্তরের প্রধান গেটে ধরা পড়েন তৎকালীন রেলমন্ত্রীর এপিএস ওমর ফারুক তালুকদার, পূর্বাঞ্চল রেলের জিএম ইউসুফ আলী মৃধা ও  নিরাপত্তা কমান্ড্যান্ট এনামুল হক। ওই ঘটনার মূল সাক্ষী ওমর ফারুকের গাড়িচালক আলী আজম। তার গাড়িতে করেই টাকাগুলো রেলমন্ত্রীর বাসায় যাচ্ছিল বলে গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন আলী আজম। তবে এ বক্তব্য জবানবন্দি হিসেবে গ্রহণের জন্য দুদক কয়েক দফা নোটিস দিলেও তিনি সাড়া দেননি। ঘটনার পর থেকে তিনি আত্নগোপন করে আছেন।

অক্টোবরের শুরুর দিকে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে তার সাক্ষাৎকার প্রচার হয়। অজ্ঞাত স্থান থেকে দেয়া ওই সাক্ষাৎকারে তিনি ৯ এপ্রিলের ঘটনার বর্ণনা দেন। এরপর আবারও তাকে তলব করে নোটিস দেয় দুদক। নোটিসে ২০ অক্টোবর হাজির হওয়ার দিন নির্ধারিত ছিল। কিন্তু তিনি হাজির হননি। এর পর থেকে তার কোনো হদিসও করতে পারেনি দুদক।

কর্মকর্তারা জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ওমর ফারুক তালুকদার, ইউসুফ আলী মৃধা ও এনামুল হকের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু করা হয়। তবে কোনো দালিলিক প্রমাণ না পাওয়ায় ফলপ্রসূ অগ্রগতি হয়নি। এ ছাড়া ঘটনার প্রধান ও প্রত্যক্ষ সাক্ষী হিসেবে বিবেচিত আলী আজমের বক্তব্য না পাওয়ায় অনুসন্ধান কাজ আটকে আছে। অবশ্য, বিকল্প হিসেবে ওমর ফারুক, ইউসুফ আলী মৃধা ও এনামুলের সম্পদের হিসাব নেয়া হয়েছে। তাদের নামে-বেনামে অবৈধ সম্পদের অস্তিত্ব পাওয়ায় এরই মধ্যে পৃথক তিনটি মামলা করা হয়েছে। সেগুলোর অভিযোগপত্রও আদালতে দাখিল করা হয়েছে। আদালতে আত্মসমর্পণ করে জেলহাজতে রয়েছেন ওমর ফারুক।

Print Friendly, PDF & Email

মতামত দিন

মতামত দিন

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

করোনার বুলেটিন না প্রকাশের সাথে আপনি কি একমত ?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
কলকাতায় বাংলা বাঙালী ও বাংলাদেশ
।।মোস্তাফা জব্বার।।মুজিবনগর সরকার ও ৮ নম্বর থিয়েট...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • ঠাকুরগাঁওয়ে বজ্রপাতে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু, গুরুতর আহত ১
  • বৃদ্ধা মাকে ফেলে গেছে ছেলে, খাবার ও শাড়ী নিয়ে ছুটে গেলেন ইউএনও
  • কুড়িগ্রামে বন্যা ও নদী ভাঙ্গনের ক্ষতি কমাতে ২৪৭৩ কোটি টাকার ৫টি প্রকল্প

করোনার বুলেটিন না প্রকাশের সাথে আপনি কি একমত ?

  • মতামত নাই (12%, ৯ Votes)
  • হ্যা (27%, ২১ Votes)
  • না (61%, ৪৭ Votes)

Total Voters: ৭৭

করেনার বুলেটিন না প্রকাশের সাথে আপনি কি একমত ?

  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)
  • না (100%, ০ Votes)

Total Voters:

ঈদ উদযাপনের চেয়ে বেঁচে থাকার লড়াইটা এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আপনি কি একমত ?

  • মতামত নাই (12%, ১৪ Votes)
  • না (16%, ১৯ Votes)
  • হ্যা (72%, ৮৬ Votes)

Total Voters: ১১৯

ত্রাণ নিয়ে সমালোচনা না করে হতদরিদ্রদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর, এই আহবানের সাথে কি আপনি একমত ?

  • মতামত নাই (4%, ২ Votes)
  • না (16%, ৮ Votes)
  • হ্যা (80%, ৪১ Votes)

Total Voters: ৫১

যাদের প্রচুর টাকা-পয়সা, ধন-দৌলতের অভাব নেই তারা কীভাবে আন্দোলন করবে? বিএনপির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদের। আপনি কি এই মন্তব্যের সাথে একমত ?

  • মতামত নাই (15%, ১০ Votes)
  • না (21%, ১৪ Votes)
  • হ্যা (64%, ৪৪ Votes)

Total Voters: ৬৮

বিএনপির কর্মীরা নেতাদের প্রতি আস্থা হারিয়েছেন,জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বক্তব্যের সাথে আপনি কি একমত ?

  • মন্তব্য নেই (21%, ৩ Votes)
  • না (21%, ৩ Votes)
  • হ্যা (58%, ৮ Votes)

Total Voters: ১৪

অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে বিএসটিআই‌‌‍‍র এখন গতিশীল ফিরে এসেছে এই কথার সাথে কি আপনি একমত ?

  • হ্যা (14%, ১ Votes)
  • একমত না (29%, ২ Votes)
  • না (57%, ৪ Votes)

Total Voters:

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠ হবে বলে আপনি কি মনে করেন ?

  • মতামত নেই (13%, ৬ Votes)
  • না (43%, ২০ Votes)
  • হ্যা (44%, ২১ Votes)

Total Voters: ৪৭

দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শক্ত অবস্থান নিয়েছেন। এজন্য তার অনেক আত্মীয়-স্বজনকে গণভবনে ঢোকা বন্ধ করে দিয়েছেন। আপনি কি এই পদক্ষেপ সমর্থন করছেন?

  • মন্তব্য নাই (11%, ১১ Votes)
  • না (16%, ১৭ Votes)
  • হ্যা (73%, ৭৬ Votes)

Total Voters: ১০৪

১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, খাদ্যের মতো রাজনীতিতেও ভেজাল ঢুকে পড়েছে। আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ক্ষমতায় তাই এখানেও কিছু ভেজাল প্রবেশ করেছে। আপনি কি এই মন্তব্যের সাথে একমত ?

  • মন্তব্য নাই (2%, ৩ Votes)
  • না (8%, ১২ Votes)
  • হ্যা (90%, ১২৮ Votes)

Total Voters: ১৪৩

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেছেন, বিএনপি একটি বট গাছ, এ গাছ থেকে দু’একটি পাতা ঝড়ে পরলে বিএনপির কিছু যাবে আসবে না , এ মন্তব্যের সাথে কি আপনি একমত ?

  • মতামত নেই (7%, ৩ Votes)
  • না (29%, ১২ Votes)
  • হ্যা (64%, ২৭ Votes)

Total Voters: ৪২

অনেক এনজিও অসৎ উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। আপনি কি এই মন্তব্যের সাথে একমত ?

  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)
  • না (19%, ৬ Votes)
  • হ্যা (81%, ২৫ Votes)

Total Voters: ৩১

ডাক্তারদের ফি বেধে দেয়ার সরকারের পরিকল্পনার সাথে আপনি কি একমত?

  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (6%, ২ Votes)
  • হ্যা (94%, ৩০ Votes)

Total Voters: ৩২

দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়তে মন্ত্রীসভায় প্রধানমন্ত্রী যে চমক এনেছেন তাতে কি আপনি খুশি ?

  • মতামত নাই (15%, ৫ Votes)
  • না (24%, ৮ Votes)
  • হ্যা (61%, ২১ Votes)

Total Voters: ৩৪

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠ ,নিরপেক্ষ হয়েছে বলে আপনি মনে করেন ?

  • হা (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (100%, ০ Votes)

Total Voters:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠ ,নিরপেক্ষ হয়েছে বলে আপনি মনে করেন ?

  • মন্তব্য নাই (9%, ২ Votes)
  • হ্যা (18%, ৪ Votes)
  • না (73%, ১৬ Votes)

Total Voters: ২২

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে বলে আপনি মনে করেন ?

  • মতামত নাই (5%, ২ Votes)
  • হ্যা (34%, ১৫ Votes)
  • না (61%, ২৭ Votes)

Total Voters: ৪৪

একবার ভোট বর্জন করায় অনেক খেসারত দিতে হয়েছে মন্তব্য করে আর নির্বাচন বয়কটের আওয়াজ না তুলতে জোট নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণফোরাম সভাপতি কামাল হোসেন, আপনি কি একমত ?

  • মতামত নাই (3%, ১ Votes)
  • না (6%, ২ Votes)
  • হা (91%, ৩২ Votes)

Total Voters: ৩৫

সংলাপ সফল হবে বলে আপনি মনে করেন ?

  • হা (13%, ২ Votes)
  • মতামত নাই (13%, ২ Votes)
  • না (74%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

  • মতামত নাই (7%, ৭ Votes)
  • না (23%, ২৩ Votes)
  • হ্যা (70%, ৭১ Votes)

Total Voters: ১০১

অাপনি কি কোটা সংস্কারের পক্ষে ?

  • মতামত নেই (3%, ১ Votes)
  • না (8%, ৩ Votes)
  • হ্যা (89%, ৩৩ Votes)

Total Voters: ৩৭

খালেদা জিয়ার মামলা লড়তে বিদেশি আইনজীবীর কোন প্রয়োজন নেই' বিএনপি নেতা আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেনের সাথে - আপনিও কি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ১ Votes)
  • না (27%, ৩ Votes)
  • হ্যা (64%, ৭ Votes)

Total Voters: ১১

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কোনো উপদেশ বা পরামর্শের প্রয়োজন নেই বলে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্য যৌক্তিক বলে মনে করেন কি?

  • মতামত নাই (7%, ১ Votes)
  • হ্যা (20%, ৩ Votes)
  • না (73%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমাদ বলেন, এরশাদকে খুশি করতে বেগম জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের জেলখানায় নেয়া হয়েছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

  • মতামত নাই (8%, ৫ Votes)
  • না (27%, ১৬ Votes)
  • হ্যা (65%, ৩৮ Votes)

Total Voters: ৫৯

আপনি কি মনে করেন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করবে ?

  • না (13%, ৫৪ Votes)
  • হ্যা (87%, ৩৬২ Votes)

Total Voters: ৪১৬

আপনি কি মনে করেন বিএনপির‘র সহায়ক সরকারের রুপরেখা আদায় করা আন্দোলন ছাড়া সম্ভব ?

  • হ্যা (32%, ৪৫ Votes)
  • না (68%, ৯৫ Votes)

Total Voters: ১৪০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি সম্পূর্ণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপরে নির্ভরশীল, এ বিষয়ে অাপনার মন্তব্য কি ?

  • মন্তব্য নাই (7%, ২ Votes)
  • হ্যা (26%, ৭ Votes)
  • না (67%, ১৮ Votes)

Total Voters: ২৭

আপনি কি মনে করেন নির্ধারিত সময়ের আগে আগাম নির্বাচন হবে?

  • মন্তব্য নাই (7%, ১০ Votes)
  • হ্যা (31%, ৪৬ Votes)
  • না (62%, ৯১ Votes)

Total Voters: ১৪৭

হেফাজতকে বড় রাজনৈতিক দল বানানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। আপনি কি তার সাথে একমত?

  • মতামত নাই (10%, ৩ Votes)
  • না (34%, ১০ Votes)
  • হ্যা (56%, ১৬ Votes)

Total Voters: ২৯

“আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে দেশে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা কমে যাবে ”সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সাথে কি অাপনি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ৩ Votes)
  • না (32%, ১১ Votes)
  • হ্যা (59%, ২০ Votes)

Total Voters: ৩৪

আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে যারা সংগঠনের নামে দোকান খুলে বসেছে, তাদের ধরে ধরে পুলিশে দিতে হবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের আপনার প্রতিক্রিয়া কি ?

  • মতামত নাই (7%, ৩ Votes)
  • না (10%, ৪ Votes)
  • হ্যা (83%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৪২

ড্রাইভাররা কি আইনের উর্ধে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • হ্যা (14%, ৭ Votes)
  • না (84%, ৪৩ Votes)

Total Voters: ৫১

সার্চ কমিটিতে রাজনৈতিক দলের কেউ নেই- ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?

  • মতামত নাই (5%, ৩ Votes)
  • হ্যা (31%, ১৭ Votes)
  • না (64%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৫৫