নড়াইলের বিভিন্ন হাটে গ্রাম বাংলার ঘুনি ও খলশানি বিক্রির ধুম
Saturday, 27th August , 2016, 07:13 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

নড়াইলের বিভিন্ন হাটে গ্রাম বাংলার ঘুনি ও খলশানি বিক্রির ধুম



উজ্জ্বল রায়,
লাস্টনিউজবিডি, ২৭ আগস্ট, নড়াইল : প্রর্বাদ আছে মাছে ভাতে বাঙ্গালী। মাছের জন্য বিখ্যাত নড়াইল জেলার চারি পার্শ্বে প্রবাহিত হয়ে গেছে নদী, খাল বিল।

অঞ্চলটি নীচু অঞ্চল ও ডোবা অঞ্চল হওয়ায় বর্ষা কালে মাঠ, খাল, বিল একটু বৃষ্টি হলেই বর্ষার পানিতে ডুবে যায়। বর্ষা মৌসুমের শুরু থেকেই বিবিন্ন হাট বাজারে দেশী প্রজাতির ছোট জাতের মাছ ধরার গ্রাম বাংলার সহজ লভ্য প্রাচীনতম উপকরণ বাঁশের তৈরী চাঁই বা খলশানি বিক্রির ধুম পড়েছে।

উপজেলার হাট-বাজার গুলোতে প্রতিদিন শত শত খলশানি বিক্রি হচ্ছে।

নড়াইল আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের পাঠানো সংবাদ ও ছবির ভিতিতে জানাজায় ঐতিহ্যবাহি নলদি,মিঠাপুর তুলারামপুর,বাসগ্রাম, মাউজ পাড়া, মাদড়াছা, গোবরা আগদিয়া সহ বিভিন হাটের ঘুনি খলশানি পট্টিতে বেচা- কেনার জন্য জনসাদারণের উপস্থিতি চোখে পড়ার মত।

স্থানীয় সূত্রে জানায়, জেলার -মালি সহ বিভিন্ন গ্রামের ঋষি সম্প্রদায়ের লোকেরা তাদের স্ত্রী, পুত্র, কণ্যাসহ পরিবারের সকল সদস্যরা মিলে এই অবসর মৌসুমে তাদের নিপুন হাতের তৈরী করে বাড়ি থেকে নিয়ে এসে উপজেরার সহ বিভিন্ন হাটে বিক্রির জন্য পসরা সাজিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে।

বাঁশ কটের সূতা এবং তাল গাছের আঁশ দিয়ে তৈরী এসব খলসানি। তবে মানের দিক দিয়েও ভালো হওয়ায় স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেমের অঞ্চল ভেদে বিশেষ করে মাছ শিকারীরা এসব হাট-বাজার তেকে পাইকারি মুল্যে তা নিয়ে যায়। ফলে এ পেশায় জড়িত পরিবারগুলো বর্ষা মৌসুমে এর কদর বেশি যথাযথ মুল্যে পাওয়ায় মাত্র দুই- তিন মাসেই খলশানি বিক্রি করেই তারা বছরের খোরাক গরে তুলে নেয়।

লাভ খুব বেশি না হলেও বর্ষা মৌসুমে এর চাহিদা থাকায় রাত দিন পরিশ্রমের মাধ্রমে খলশানি তৈরি করেই তারা বেজাই খুশি। এক দিকে যেমন সময় কাটে অন্য দিকে লাভের আশায় বাড়ির সকল সদস্যরা মিলে খলশানি তৈরি কাজ করে অভাব –অনাটনের কবল থেকে একটু সুখের নিঃম্বাস ফেলে।

এসব খলশানি তৈরিতে প্রকার ভেদে খরচ হয় ১০০ থেকে ২শত টাকায় বিক্রি হয়। আবার একটু ভার মানের খলশানি বিক্রি হয় ২৫০-থেকে ৩ শত টাকা পর্যন্ত। এতে করে কুব বেশি লাভ না হলেও পৈত্রিক বা বাব-দাদার পেশা ছাড়তে তারা নারাজ।

আধিনিকতার উৎকর্ষের তৈরি ছোট জাতের মাছ ধরার সূতি, ভাদায় ও কারেন্ট জালের দাপটের কারনে দেশি প্রযুক্তির বাঁশের তৈরি খলশানি সামগ্রী এমনিতেই টিকে থাকতে পারছে না।

কিন্তু ঝীবনের তাগিদে তারা একে বারে কর্মহীন থাকতেও চায় না । তবে সরকারি -বে-সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা ও সহযোগতিা পেলে মৌসুমের আগে বেশি পরিমান খলশানি মজুত করতে পারলে ভরা মৌসুমে বেশি দামে বিক্রি হলে লাভ ভালো হয়।

জেলার একাধিক বিভিন্ন হাট-বাজারের একাধিক খলশার বিক্রেতার সাথে কথা বললে তারা জানান, খলশানি তৈরির সামগ্রীর দাম আগের চেয়ে অনেক গুন বেড়েছে। তাই আগের মতো আর লাভ হয় না।

দীর্ঘ দিন তেকে এ ব্যবসার সহিত জড়িত তাই ছাড়তেও পাড়ছি না। তারা আরও জানান, বর্ষা এবার আগাম শুরু হওয়ায় খলশানির কদরও বেড়েছে। হাট বাজার গুলোতে খলশানি বিক্রির ধুম পড়েছে।

লাস্টনিউজবিডি, এ এস

Print Friendly, PDF & Email

You must be logged in to post a comment Login

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান, চায়নার ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
যুবলীগের নতুন নেতৃত্বঃ পরশের পরশ ছোঁয়ায় জেগে উঠুক কোটি তরুণ
।।মানিক লাল ঘোষ।।"আমার চেষ্টা থাকবে যুব সমাজ যেনো...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • দিবালোকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জমি দখলের অভিযোগ
  • রেলের উচ্ছেদ হওয়া ১৫০ পরিবারের পূণর্বাসন বন্দোবস্ত
  • বিরল প্রজাতির শুকুন পাখি উদ্ধার

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান, চায়নার ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • না (100%, ১ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৫:২৮ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান ইন, চায়না ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • হ্যা (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৪:৫৭ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

কোন দেশের কোন কোম্পনীর করোনা ভ্যাকসিন আপনার পছন্দের এবং কার্যকর বলে মনে করেন ?

  • হ্যা (100%, ১ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৮:৫৮ পূর্বাহ্ন
End Date: No Expiry

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

  • না (63%, ১৫ Votes)
  • হ্যা (29%, ৭ Votes)
  • মতামত নাই (8%, ২ Votes)

Total Voters: ২৪

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

How Is My Site?

  • Good (0%, ০ Votes)
  • No Comments (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Excellent (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry