নতুন করে তৈরি হচ্ছেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা, কার জন্য?
Friday, 26th August , 2016, 02:38 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

নতুন করে তৈরি হচ্ছেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা, কার জন্য?



লাস্টনিউজবিডি, ২৬ আগস্ট, ডেস্ক: ‘হর হর ব্যোমকেশ’-এ অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছিলেন নুসরত জাহান। নতুন ছবি ‘ব্যোমকেশ পর্ব’-তে দেখা যাবে আর এক ‘নায়িকা’-কে। এখনও পর্যন্ত টালিগঞ্জের ছকবাঁধা ছবিতেই তাঁকে দেখা গিয়েছে। কিন্তু নতুন এই ‘ব্যোমকেশ’ ছবিতে একেবারেই অন্য রকম একটি চরিত্রে দেখা যাবে সায়ন্তিকা বন্দোপাধ্যায়কে। সামনেই শ্যুটিং। তার আগে কীভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছেন নায়িকা? জানালেন এবেলা ওয়েবসাইটকে।

প্রশ্ন: একদম অন্য রকম একটা চরিত্র করছ এবার, কীভাবে প্রস্তুতি চলছে?
সায়ন্তিকা: আমি প্রথমেই বলব, ‘ব্যোমকেশ’ একটা ব্র্যান্ড, একটা ফ্র্যাঞ্চাইজ হয়ে গিয়েছে। এটার সঙ্গে যুক্ত হওয়াটাই আমার জন্য খুব স্পেশাল। এই ধরনের চরিত্র, এই ধরনের প্রেজেন্টেশন আমি আগে করিনি। এটা অবশ্যই নতুন আমার কাছে। ছবিতে আমি যে চরিত্রটা করছি, গোলাপবাই, তার একটা গান রয়েছে। সেই গানের কোরিওগ্রাফি করছেন সরোজ খান। এই প্রথম কোনও বাংলা ছবির গানের কোরিওগ্রাফি করছেন সরোজজি। বিক্রম ঘোষ মিউজিক কম্পোজ করছেন। সব মিলিয়ে অস্বাভাবিক একটা এক্সপিরিয়েন্স আমার জন্য। আমি প্রচণ্ড এক্সাইটেড। ১ সেপ্টেম্বর আমার শ্যুটিংটা রয়েছে। আর প্রস্তুতি বলতে প্রত্যেকটা চরিত্রেরই তো একটা প্রস্তুতি লাগে। অরিন্দমদা ও আমাদের টিমের অন্যরা একটা ক্যারেকটার স্কেচ বানিয়েছেন। কীভাবে চরিত্রটি কথা বলবে, তার লুকস কেমন হবে… খুব স্ট্রং একটা প্রি-প্রোডাকশন হয়েছে। আমি খুব এক্সাইটেড।

প্রশ্ন: এই চরিত্রের জন্য তুমি কি আলাদা করে কোনও ওয়র্কশপ করেছ কারও কাছে?
সায়ন্তিকা: না, আলাদা করে কারও কাছে নয়, অরিন্দমদার কাছেই ওয়র্কশপ করেছি। গোলাপবাই কীভাবে তাকায়, কীভাবে কথা বলে, তার বডি ল্যাঙ্গোয়েজ কেমন, সবকিছু নিয়ে অরিন্দমদার সঙ্গেই আমার আলোচনা হয়েছে। যদি সেটাকে ওয়র্কশপ বলো তো হ্যাঁ, সেটা অরিন্দমদার সঙ্গেই করেছি।

প্রশ্ন: এটাই তো তোমার প্রথম ‘চরিত্রাভিনয়’? এর আগে তো শুধু ‘নায়িকা’ হিসেবেই দেখা গিয়েছে তোমাকে বাংলা ছবিতে…

সায়ন্তিকা: দেখো, নায়িকা হলেও সেটাও তো একটা চরিত্র। সে কোনও কলেজের ছাত্রী হতে পারে, বা যেমন ‘কেলোর কীর্তি’-তে আমি একজন হাউজওয়াইফ-এর চরিত্র করেছিলাম। সেটাও তো একটা ক্যারেকটার। এটা ঠিক যে এই ছবিটা একটু অন্য রকম, চরিত্রটা একেবারেই অন্য ধরনের। আমার কাছে যে কোনও ছবিই একটা কাজ। যে ধরনের ছবি আমি করি, সেখানে আমি যতটা গুরুত্ব দিয়ে চরিত্রের জন্য তৈরি হই, এখানেও ব্যাপারটা একই। আমি কাজই করছি, অভিনয়ই করছি। বাট এই ছবিটার ক্ষেত্রে এক্সাইটমেন্টটা অবশ্যই বেশি। অরিন্দমদার সঙ্গে এটা আমার প্রথম ছবি। প্রথম ব্যোমকেশ ব্র্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছি। এই প্রথম একটা চরিত্র করতে চলেছি যে বাংলায় কথা বলে না, ভোজপুরী ডায়লেক্ট আছে তার… এরকম আরও অনেক ছোট ছোট ব্যাপার রয়েছে যেগুলো নিয়ে মাথা ঘামাতে হচ্ছে।

প্রশ্ন: অর্থাৎ তুমি অভিনয় করতে ভালবাস। অনেকেই কিন্তু শুধু ‘নায়িকা’ হিসেবেই ব্র্যান্ডেড হতে চান, অন্য রকম কোনও চরিত্রে অভিনয় করতে খুব একটা উৎসাহী হন না।

সায়ন্তিকা: আমি খুব একটা এটাতে সহমত হচ্ছি না। শুধু আমি নয়, আমার অন্য কলিগরা, যাদের নামের সঙ্গে ‘নায়িকা’ ট্যাগটা রয়েছে, তাদের সবার হয়েই বলব, আলাদা আলাদা চরিত্রে অভিনয় করতে আমরা সবাই চাই। নায়িকা মানেই তাকে ডান্স সিকোয়েন্স করতে হবে, সুন্দর লাগতে হবে, ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হবে ঠিক করে, কিন্তু তার সঙ্গে অভিনয়টাও করতে হবে। আই কান্ট বি সায়ন্তিকা অন স্ক্রিন। ‘কেলোর কীর্তি’-তে যে চরিত্রটা আমি করেছি বা ‘বিন্দাস’-এ বা ‘হিরোগিরি’-তে যে ডাক্তারের চরিত্রটা করেছিলাম, সেটাও তো আমাকে হতে হয়েছে। প্রত্যেকটা চরিত্রের ভাবনা-চিন্তা বা বডি ল্যাঙ্গোয়েজ তো আলাদা। তাই আমি সব নায়িকার হয়েই বলছি, সবাই চায় নতুন নতুন চরিত্রে অভিনয় করতে। আর সব চরিত্রের জন্যেই হোমওয়র্ক লাগে। কিন্তু হ্যাঁ, গোলাপবাই-এর মতো চরিত্রের জন্য বা ব্যোমকেশ-এর মতো ছবির জন্য হয়তো আর একটু বেশি পরিশ্রম করতে হয়। সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে অন-সেট ইমপ্রোভাইজেশন তো থাকেই কিন্তু তার আগে চরিত্রটাকে পুরোপুরি মাথায় বসিয়ে নিতে হয়।

প্রশ্ন: তুমি কি গল্পটা পড়েছ?
সায়ন্তিকা: হ্যাঁ নিশ্চয়ই। আমি যখন একটা চরিত্রে অভিনয় করেছি তখন তার ব্যাকগ্রাউন্ডটা তো জানতেই হবে।

প্রশ্ন: ব্যোমকেশ পড়তে পছন্দ কর?
সায়ন্তিকা: হ্যাঁ, ব্যোমকেশ বা ফেলুদা, এই ধরনের গল্প নিয়ে তো ইদানীং ছবি হচ্ছে। আগে তো বইতেই পড়া হতো। আমিও ছোটবেলায় পড়েছি, এখন হয়তো আমার আর বই পড়ার সময় হয় না। আর আমার মনে হয়, এটা এমন একটা সাবজেক্ট যেটা সব রকম বয়সের মানুষকে অ্যাট্রাক্ট করে। বিশেষ করে ফেলুদা তো বাচ্চারা খুবই পছন্দ করে। সেজন্য প্রথমেই বললাম যে ‘ব্যোমকেশ’, এই ব্র্যান্ডটার সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমার খুব এক্সাইটেড লাগছে।

প্রশ্ন: ‘ব্যোমকেশ পর্ব’ কি এবছরের শেষে রিলিজ হবে?
সায়ন্তিকা: হ্যাঁ, মোটামুটি এবছরের শেষেই তবে ডেটটা আমি বলতে পারব না।

প্রশ্ন: টলিউড থেকে বলিউডে যাওয়ার কথা ভাবছ?
সায়ন্তিকা: আমি আপাতত খুশি এখানে। ভগবানের আশীর্বাদে, মা-বাবার আশীর্বাদে ভাল কাজ করছি। বিভিন্ন ধরনের কাজ করছি, অনেক কিছু এক্সপিরিয়েন্স করছি। আপাতত এখানেই খুশি, কিন্তু কপালে কী আছে, কেউই তো জানতে পারে না। আই অলওয়েজ বিলিভ ইন গোয়িং উইথ দ্য ফ্লো অ্যান্ড এই মুহূর্তে জীবনটাকে খুব ভালভাবে উপভোগ করছি। তবে ওই যে… কেউ তো আগে থেকে বলতে পারে না ভবিষ্যতে কী আছে…

লাস্টনিউজবিডি/এমএইচ

Print Friendly, PDF & Email

You must be logged in to post a comment Login

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
যুবলীগের নতুন নেতৃত্বঃ পরশের পরশ ছোঁয়ায় জেগে উঠুক কোটি তরুণ
।।মানিক লাল ঘোষ।।"আমার চেষ্টা থাকবে যুব সমাজ যেনো...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • বিরল প্রজাতির শুকুন পাখি উদ্ধার
  • চিকিৎসা সামগ্রী চুরি, হাতেনাতে ধরা খেলেন হাসপাতালের কর্মচারী
  • রুহিয়া এলএসডিকে জমি দান করলেন এমপি রমেশ চন্দ্র

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

  • না (67%, ১৪ Votes)
  • হ্যা (24%, ৫ Votes)
  • মতামত নাই (9%, ২ Votes)

Total Voters: ২১

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

How Is My Site?

  • Good (0%, ০ Votes)
  • Excellent (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • No Comments (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry