কঠোর শাসন শিশুকে মিথ্যাবাদী বানায়!
Monday, 22nd August , 2016, 12:53 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

কঠোর শাসন শিশুকে মিথ্যাবাদী বানায়!



লাস্টনিউজবিডি, ২২ আগস্ট, ডেস্ক:
বাবা-মায়ের কঠোর শাসনের কারণেই শিশুরা মিথ্যাবাদী হয়। এমন দাবি করেছেন পশ্চিমা বিশ্বের কয়েকজন মনোবিদ। তাদের মতে, মা-বাবা যত বেশি কঠোর শাসন করেন, শিশুরা তত বেশি মিথ্যে বলতে শেখে। বাবা-মায়ের কঠোরতা ও অনমনীয় আচরণের কারণেই মিথ্যা বলার ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জন করে শিশুরা।

যে মনোবিদরা এমন দাবি করেছেন, তাদেরই একজন সাইকোথেরাপিস্ট ফিলিপা পেরি। তিনি দাবি করেন, ‘বাবা-মায়ের কঠোর শাসন এমন একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি করে, যেখানে শিশুরা সত্য কথা বলার জন্য নিজেদের নিরাপদ মনে করে না।’

পেরি আরও দাবি করেন, ‘পৃথিবীর সব মিথ্যাই মানুষের বেড়ে ওঠার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এবং শিশুর জন্য সত্য কথা বলার মত পরিবেশ সৃষ্টি না করায় এই মিথ্যার জন্ম হয়। কিন্তু সত্যিকার বিষয়টি উপলব্ধি করতে ব্যর্থ পিতা-মাতা সন্তানকে মিথ্যে বলতে দেখলে আক্ষেপের বশবর্তী হয়ে নিজেদেরই দোষ দিতে থাকেন।’

পেরির এই দাবি সমর্থন পাচ্ছে কানাডার মনোবিদ ভিক্টোরিয়া তালওয়ারের একটি গবেষণার ফল দ্বারা। পশ্চিম আফ্রিকায় শিশুদের মিথ্যা কথা বলার ওপর একটি গবেষণা চালিয়েছেন ভিক্টোরিয়া। তিনি এই গবেষণার নাম দিয়েছিলেন ‘পিপিং গেম’। গবেষণার জন্য পশ্চিম আফ্রিকার দুটি স্কুলকে বেছে নিয়েছিলেন তিনি। এর একটি ছিল শীথিল নিয়ম-কানুনের, অন্যটি ছিল কঠোর নিয়ামানুসারী।

দুটি স্কুলেই শিক্ষার্থীদের একই ধরনের পরীক্ষা নিয়েছেন ভিক্টোরিয়া। কিছু জিনিস দিয়ে শব্দ উৎপন্ন করেছিলেন তিনি। কিন্তু শিক্ষার্থীদের কাছে তা গোপন রেখেছিলেন। শিক্ষার্থীদের বলা হয়েছিল, জিনিসটির দিকে না তাকিয়ে বলতে হবে শব্দটা কিসের। শেষ বস্তুটি দিয়ে এমন শব্দ উৎপন্ন করা হতো যা সচরাচর ওই বস্তু থেকে উৎপন্ন হয় না। সেই সময়টায় তিনি কক্ষ ত্যাগ করে বাইরে যেতেন এবং ফিরে আসার পর শিশুদের কাছে জানতে চাইতেন, ওটা কিসের শব্দ এবং পরীক্ষার সময় তারা তা উঁকি মেরে দেখেছিল নাকি?

এই প্রশ্নের উত্তরে শীথিল নিয়ম-কানুনের স্কুলের অনেক শিশুই সত্যি উত্তর দিয়েছে। অনেকে আবার মিথ্যে বলেছে। তবে কঠোর নিয়ম-কানুনের স্কুলটির শিক্ষার্থীরা এর উত্তরে মিথ্যেই বলেছে এবং তারা খুব দক্ষতার সঙ্গেই তা করেছে।

ভিক্টোরিয়ার এই গবেষণা সম্পর্কে বলতে গিয়ে ‘বর্ন লায়ারস-হোয়াই উই কান্ট লিভ উইদাউট লায়িং’ বইয়ের লেখক ইয়ান লেসলি বলেছেন, ‘কঠোর নিয়মের ওই স্কুলটির (যেখানে কথায় কথায় বাচ্চাদের শাস্তি দেওয়া হয়) শিশুদের সবাই মিথ্যে বলেছিল এবং তারা খুব সাজিয়ে গুছিয়েই মিথ্যে বলেছিল। তাই কঠোর সব নিয়ম-কানুন প্রয়োগ করে স্কুলটি আসলে দক্ষ ও সুচতুর মিথ্যেবাদী তৈরির যন্ত্রে পরিণত হয়েছে।’

ভিক্টোরিয়ার এই গবেষণা নিয়ে একটি রেডিও প্রোগ্রাম করেছেন ফিলিপা পেরি। যা আগামী মঙ্গলবার রেডিও ফোর-এ সম্প্রচারিত হবে। সেই প্রোগ্রাম সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে পেরি ব্রিটেনের জনপ্রিয় দৈনিক দ্য ডেইলি মেইলকে বলেছেন, ‘ওই গবষেণা থেকে একটি মজার জিনিস উপলবদ্ধি করতে পেরেছি আমি। তা হলো-মিথ্যা কথা বলার বিষয়ে মাত্রাতিরিক্ত কঠোরতা অবলম্বন করা মানে হচ্ছে, মানুষকে মিথ্যা বলার ক্ষেত্রে আরও বেশি পারদর্শী করে তোলা। যদি একটি শিশু বিপদে পড়ে মিথ্যা বলে, তাহলে আসলে ওটা ওই শিশুর দোষ নেই। বরং এই মিথ্যাটা হলো অন্যের দ্বারা নির্মিত। যে পরিবেশে শিশু নিজেকে নিরাপদ মনে করে না, সেখানেই সে মিথ্যা বলে। তাই মিথ্যা কথা বলার জন্য শিশুকে আপনি দোষী করতে পারেন না।’

নিজের বক্তব্যের স্বপক্ষে পেরি আরো বলেছেন, ‘মিথ্যা কথা বলার বিষয়ে কঠোরতা অবলম্বন করে প্রকৃতপক্ষে সন্তানদের কোনো মঙ্গল করতে পারি না আমরা। এই বিষয়ে অতি কঠোর ও অনমনীয়তা অবলম্বন করলে পরিস্থিতি আরও বেশি খারাপ হয়।’

 

 
লাস্টনিউজবিডি/এমবি

Print Friendly, PDF & Email

You must be logged in to post a comment Login

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
যুবলীগের নতুন নেতৃত্বঃ পরশের পরশ ছোঁয়ায় জেগে উঠুক কোটি তরুণ
।।মানিক লাল ঘোষ।।"আমার চেষ্টা থাকবে যুব সমাজ যেনো...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • জাহাঙ্গীর হত্যা মামলার প্রধান আসামী গ্রেফতার
  • বোরকা কিনে দেওয়ার কথা বলে কলেজছাত্রীকে হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ
  • অবশেষে ডি‌সির আশ্বা‌সে ঘর পা‌চ্ছেন ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধা

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

  • না (65%, ১৩ Votes)
  • হ্যা (25%, ৫ Votes)
  • মতামত নাই (10%, ২ Votes)

Total Voters: ২০

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

How Is My Site?

  • Good (0%, ০ Votes)
  • Excellent (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • No Comments (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry