•  এসএসসির ফল প্রকাশ  •     •  প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ আজ  •     •  মোহাম্মদ হানিফ মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন আজীবন: প্রধানমন্ত্রী  •     •  কুমিল্লার ৫ ইউপিতে ভোট গ্রহণ শুরু  •     •  এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ আজ  •     •  দেশে ২৫ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৩৫ কোটি ডলার  •     •  আলাদা করে সম্পদের হিসাব দিতে হবে না সরকারি কর্মচারীদের  •     •  অপতৎপরতার বিরুদ্ধে প্রয়োজনে কঠোর ব্যবস্থা -তথ্যমন্ত্রী  •     •  আরপিও সংশোধন প্রস্তাব: তৃতীয় দফায় মন্ত্রণালয়কে ইসির চিঠি  •     •  রাঘববোয়াল নয়, চুনোপুঁটি ধরতে ব্যস্ত দুদক: হাইকোর্ট  •     •  ভারত ছাড়া চীনের নেতৃত্বে বৈঠকে বাংলাদেশসহ ১৯ দেশ  •     •  ‘গণতন্ত্র ১ চাকার গাড়ি না, আ. লীগের একার পক্ষে প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়’  •     •  নৌ ধর্মঘটে অচল বরিশাল নদীবন্দর  •     •  বাসের ধাক্কায় একই পরিবারের ৩ জন নিহত  •     •  ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির দেশ হওয়ার পথে বাংলাদেশ  •     •  আগামী নির্বাচনের আগে কোনো সংলাপ না করার ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর  •     •  বৃহস্পতিবার থেকে রাজশাহীর ৮ জেলায় পরিবহন ধর্মঘট  •     •  আমাদের কৃষ্টি-সংস্কৃতি-ঐতিহ্য নতুন প্রজন্মের জানা প্রয়োজন: তথ্যমন্ত্রী  •     •  মুক্তিযুদ্ধে শহিদ আইনজীবীদের তালিকা চেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট  •     •  প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ চলতি সপ্তাহেই  •  
Wednesday, 23rd November , 2022, 04:08 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

পুরো শহর একই ছাদের তলায়: খাওয়া-ঘুম একসঙ্গে, শুধু প্রেমে পড়া ‘বারণ’


লাস্টনিউজবিডি, ২৩ নভেম্বর: সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর থেকে রাতে ঘুমোতে যাওয়া পর্যন্ত একটা পুরো শহর একই ছাদের তলায় থাকে। ব্যাগ হাতে একই বাজারে যায়, একই মুদির দোকান থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কেনে, রোগ হলে চিকিৎসাও করাতে যায় একই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে, আবার পছন্দের পাব-ক্যাফে-রেস্তোরাঁও একটিই।

আর এই দোকান, বাজার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, মল, রেস্তোরাঁ- সব রয়েছে একই ছাদের তলায়। মায় ঐ ছাদের নিচেই রয়েছে, একটি পুরোদস্তুর থানা, একটি পোস্ট অফিস, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে, এমনকি সরকারি দফতরও। প্রশাসনিক কাজের জন্য বড় একটা বাড়ির বাইরে বেরোতে হয় না কাউকে। অনেকের অফিসও ঐ ছাদের নিচেই। এমনকি, মনোরঞ্জনের জন্য একটি ক্লাবও রয়েছে এই বাড়িতে।

নিত্যদিনের প্রার্থনার জন্যও আবাসিকদের বাইরে যেতে হয় না। শহরের সবাই খ্রিস্টের উপাসক। তাদের জন্য একটি গির্জা রয়েছে ঐ ছাদেরই নিচে। এ পর্যন্ত পড়ে মনে হতে পারে, বাকি আর রইল কী! সত্যি বাকি কিছু নেই প্রায়। থাকার উপায়ও নেই। পুরো শহরে ঐ একটিমাত্র বাসযোগ্য বহুতল। তাই পুরো শহরটা প্রায় সব কিছু নিয়ে ঢুকে পড়েছে ঐ বহুতলেই।

শহরটির নাম হুইটিয়ার। আমেরিকার আলাস্কার এক চিলতে জনপদ যার মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশেরও বেশি মানুষ থাকেন শহরের একটিই বহুতলে। ছবির মতো দেখতে শহর। চারপাশে সবুজালি, উঁচু পাহাড়। সেই পাহাড়ের গায়ে, মাথায় পুরু বরফের পরত। আর তাদের উপত্যকায় জেগে রয়েছে একটি মাত্র বহুতল। ধবধবে সাদা ১৪ তলা ভবনের গায়ে বাদামি রঙের পোঁচ। বাড়িটির নাম বাগিচ টাওয়ার। হঠাৎ দেখলে মনে হতে পারে বিশাল কোনো হোটেল বুঝি। আসলে এই বাড়িতে এককালে ছিল সেনাবাহিনীর ব্যারাক।

বাগিচ টাওয়ারের বয়স প্রায় ৮০। হুইটিয়ার শহরেরও বয়স প্রায় তার কাছাকাছি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সেনা বাঙ্কার তৈরি করা হয়েছিল এই অঞ্চলে। সেই সেনাদের প্রয়োজনীয়তার জোগান দিতেই তৈরি হয় একের পর এক সুবিধা-জলের সংযোগ, বিদ্যুৎ, রেলপথ, এমনকি একটি স্টেশনও। যুদ্ধ শেষ হলে সেনাদের ছেড়ে যাওয়া শিবিরে এই সব সুযোগ-সুবিধার আনুকূল্যে গড়ে উঠতে শুরু করে জনপদ। যা কালক্রমে বদলে যায় একটি সম্পূর্ণ শহরে।

হঠাৎ গড়ে ওঠা এই জনপদ এতো দিন আড়ালেই ছিল। সম্প্রতি তার কথা প্রকাশ্যে আসে একটি টিক টক ভিডিওর দৌলতে। হুইটিয়ার শহরের বাসিন্দা এক তরুণী জেনেসা ঐ ভিডিও করেছিলেন, যেখানে তিনি ঐ শহরে নিজেদের জীবনের বর্ণনা দিয়েছেন। ভিডিওটি যারাই দেখেছেন তারাই শহরটি নিয়ে নানা প্রশ্ন করেছেন জেনেসাকে। সেই সব প্রশ্নের যে সব জবাব দিয়েছেন তিনি, তা শুনে আরো চমকে গিয়েছেন তারা।

শহরের বর্ণনা দিয়ে ঐ ভিডিওয় ভেনেসা বলেছেন,‘এমন শহরও আছে, যেখানে শহরবাসীরা সবাই একটি বাড়িতে থাকেন। আমি সেই শহরের বা বলা ভালো সেই বাড়িরই বাসিন্দা।’এরপর নিজের ঘর আর ঘর থেকে শহরের বাকি অংশের ছবিও দেখিয়েছেন ভেনেসা। জানিয়েছেন, এই বাড়ির ভেতরেই একটি গির্জা, দোকান, বাজার, প্রশাসনিক দফতর, পোস্ট অফিস রয়েছে। শহরে একটি স্কুল রয়েছে। সেটি অবশ্য বাগিচ টাওয়ারের বাইরে।

ঠিক রাস্তা পেরিয়ে উল্টো দিকেই। তবে সেই স্কুলে যাওয়ার জন্যও বাড়ির বাইরে বেরোতে হয় না পড়ুয়াদের। ভেনেসা জানিয়েছেন,‘বাড়ির একতলায় একটি সুড়ঙ্গ পথ রয়েছে। সেই সুড়ঙ্গ বেয়ে সোজা পৌঁছে যাওয়া যায় স্কুলবাড়িতে।’ সব মিলিয়ে ৩১৮ জন বাসিন্দা এই বাগিচ টাওয়ারের। শহরের জনসংখ্যাও তার কাছাকাছিই। ভেনেসা জানিয়েছেন, ১৯৬৪ সালে এক বার বেশ বড় ভূমিকম্প হয়েছিল এই শহরে। তার পরে অনেকেই শহর ছেড়ে চলে যান।

কিন্তু একটি শহরে একটি মাত্র বাড়ি! এটি বেশ অদ্ভুত না? কারণ জানিয়ে ভেনেসা বলেছেন, শহরে আরো একটি বাড়ি আছে। তবে সেটি বাসযোগ্য নয়। পরিত্যক্তও। আর বাড়ি বানানোর সুযোগও নেই এই শহরে। কেন না শহরের প্রায় পুরোটাই রেলের সম্পত্তি। যদি জমিই না পাওয়া যায়, তবে বাড়ি হবে কোথায়! তাই বাগিচ টাওয়ারই ভরসা হুইটিয়ারের বাসিন্দাদের। সবাই ঐ বহুতলেই একসঙ্গে থাকেন। যেন একটি একান্নবর্তী পরিবারের সদস্য সবাই।

ভেনেসার ভিডিও দেখে অনেকেই জানতে চেয়েছিলেন, এক ছাদের তলায় সব সময় থাকতে একঘেয়েমি আসে না তাদের? একটু অন্য রকম মনোরঞ্জন চাইলে তারা কী করেন? ভেনেসা জানিয়েছেন, বাগিচের বাইরে শহরের একটি হ্রদে বোটিং করার ব্যবস্থা আছে। বরফে মোড়া শহরটিতে স্কি করারও সুযোগ রয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। কিন্তু ভেনেসার দুঃখ একটাই। এই শহরে প্রেম করার সুযোগ নেই একেবারেই। ডেটে যাওয়াও এক রকম ‘স্বপ্ন’ই।

বাগিচ টাওয়ারের বাসিন্দা ঐ তরুণী জানাচ্ছেন, শহরে তার সমবয়সি বাসিন্দা রয়েছেন বড় জোর ২০ জন। প্রায় প্রত্যেক বয়সের মানুষেরই সংখ্যা প্রায় ঐ রকম। তার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু তার ঠিক উপরের ফ্লোরেই থাকেন।

ভেনেসা বলেছেন,‘বাকি যাদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হতে পারত, তাদের সঙ্গে ছোট থেকে একসঙ্গে বড় হয়েছি। আমাদের মধ্যে বন্ধু বা ভাই-বোনের মতো সম্পর্ক। তাই তাদেরকে প্রেমিক হিসাবে ভাবতে খুব অদ্ভুত লাগে।’

লাস্টনিউজবিডি/পি

সর্বশেষ সংবাদ

আপনার মতামত দিন
Print Friendly, PDF & Email
youtube
youtube
পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
islame bank
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রতিহিংসার রাজনীতির জনক হচ্ছে বিএনপি-আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
IBBL-Web-Ad-Option-6.gif
মতামত
সাক্ষাৎকার
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • রসিক ভোট: মেয়রসহ ৩৪ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ
  • পুলিশের ঘুষিতে নাক ফাটলো বাইকারের!
  • বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ, ওসি-সাংবাদিকসহ আহত শতাধিক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রতিহিংসার রাজনীতির জনক হচ্ছে বিএনপি-আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

  • একমত না (75%, ৩ Votes)
  • আপনি কি একমত (25%, ১ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২, ২০২২ @ ৪:০১ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

নিজেদের দলীয় কর্মী মনে করবেন না-ডিসি-এসপিদের প্রতি সিইসি এ বিষয়ে আপনার মতামত কি ?

  • একমত (100%, ৩ Votes)
  • একমত না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: অক্টোবর ৮, ২০২২ @ ৫:১৬ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

থানায় গেলেই হয়রানির শিকার হতে হয় জনগণকে। টাকা ছাড়া কোনো কাজ হয় না। এই অবস্থার অবসান চান নতুন আইজিপি। আপনি কি মনে করেন ?

  • একমত (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: অক্টোবর ৬, ২০২২ @ ৬:২৫ পূর্বাহ্ন
End Date: No Expiry

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ভিসা প্রথা তুলে দেওয়া উচিত বলে মনে করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, আপনি কি একমত ?

  • হ্যা (67%, ১১৬ Votes)
  • না (28%, ৪৯ Votes)
  • মতামত নাই (5%, ৮ Votes)

Total Voters: ১৭৩

Start Date: ডিসেম্বর ৬, ২০২১ @ ১০:১৮ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

অ্যালার্জি আছে এমন কারো করোনা টিকা নেওয়া উচিত নয় বলেছেন ব্রিটেনের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ। আপনি কি এর সাথে একমত?

  • হ্যা (59%, ১০৭ Votes)
  • না (26%, ৪৭ Votes)
  • মতামত নাই (15%, ২৬ Votes)

Total Voters: ১৮০

Start Date: ডিসেম্বর ৯, ২০২০ @ ৮:২১ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

 Page ১ of ৩  ১  ২  ৩  »