Tuesday, 13th July , 2021, 12:09 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

চাঁদে রোটেশনাল চেঞ্জ, ভয়াবহ বন্যার শঙ্কা বিজ্ঞানীদের


লাস্টনিউজবিডি, ১৩ জুলাই: চাঁদ হচ্ছে মহাবিশ্বে পৃথিবীর সবচেয়ে কাছের প্রতিবেশী। এক এক প্রজন্মের নিকট এর পরিচয় এক এক রকম। ছোটবেলায় চাঁদকে সূতো কাটা বুড়ীর ছোট্ট ঘর হিসেবে কল্পনা করে বাচ্চারা। কখনও কখনও একে উপমা হিসেবে ব্যবহার করেন বিভিন্ন বয়সের রোমান্টিক লোকজন। চাঁদের কারণেই পৃথিবীতে জোয়ার-ভাটা হয়। পৃথিবীর ওপর নানা প্রভাব ফেলে এই উপগ্রহটি।

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, পৃথিবীতে বৃষ্টিপাতের ওপরেও নাকি চাঁদের কিছুটা প্রভাব রয়েছে! প্রতিনিয়ত বিশ্বজুড়ে আবহাওয়ার পরিবর্তন হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা ও তীব্রতা বেড়েছে। আমেরিকা সম্প্রতি একাধিক ঘূর্ণিঝড়ের মুখোমুখি হয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠের উত্থান এবং উচ্চ জোয়ার চাঁদের সাথে সম্পর্কিত। বিজ্ঞানীরা বলছেন, যদি চাঁদ কিছুটা অবস্থান পরিবর্তন করে তবে সারাবিশ্বে ভয়াবহ বন্যা দেখা দেবে।

উচ্চ জোয়ারের ফলে সৃষ্ট বন্যাকে নিউইসান্স বন্যা বলা হয়। এমন সময়ে, সমুদ্রের তরঙ্গগুলো তাদের গড় উচ্চতা থেকে ২ ফুট বেশি উত্থিত হয়। যার ফলে শহরগুলোতে জল ঢুকতে থাকে। ঠিক যেমন বর্ষার সময় মুম্বাইয়ের অবস্থা আরও খারাপ হয়ে যায়। এ কারণে পরিস্থিতি বিশৃঙ্খল হয়ে পড়ে।

জাতীয় মহাসাগর ও বায়ুমণ্ডলীয় অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মতে, আমেরিকাতে উচ্চ জোয়ারের কারণে ২০১৯ সালে ৬০০ বার বন্যা হয়েছিল। কিন্তু নাসার এক নতুন গবেষণা অনুসারে, ২০৩০ সালের মধ্যে আমেরিকা-সহ বিশ্বে অনেক জায়গায় নিউইসান্স বন্যা দেখা দেবে। ফলে উচ্চ জোয়ারের সময় আসা তরঙ্গগুলোর উচ্চতা প্রায় ৩ থেকে ৪ গুণ বেশি হবে।

নাসার এই সমীক্ষাটি গত মাসে নেচার ক্লাইমেট চেঞ্জে প্রকাশিত হয়েছিল। তবে নাসা এখন সতর্ক করেছে যে ২০৩০ সালের মধ্যে নিউইসান্স বন্যা অনেক বেড়ে যাবে। এগুলো বছরে একবার বা দু’বার আসবে না, বরং প্রতি মাসে আসবে। কারণ যখনই চাঁদের কক্ষপথে সামান্য পরিবর্তন হবে তখনই এই বন্যা আরও ক্ষতিকারক হয়ে উঠবে। উপকূলীয় অঞ্চলে এই বন্যা প্রতি মাসে দু-তিনবার আসবে

আরও পড়ুন:

চাঁদের অবস্থান পরিবর্তনের সাথে সাথে উপকূলীয় অঞ্চলে নিউইসান্স বন্যা সেখানে বাসকারী মানুষের পক্ষে বিপদজনক হয়ে উঠবে। এটি এড়াতে বিশ্বজুড়ে সরকারগুলোকে পরিকল্পনা করতে হবে। হাওয়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ফিল থম্পসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, দীর্ঘমেয়াদী জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এটি ঘটবে। এর কারণে পৃথিবীতে অনেক সমস্যার সৃষ্টি হবে।

ফিল থম্পসন বলেছেন, মাসে যদি এইরকম বন্যা ১০-১৫ বার ঘটে তবে মানুষের কাজ কারবার বন্ধ হয়ে যাবে। মানুষের আয় ব্যাহত হবে। চাকরি আর থাকবে না। অবিচ্ছিন্ন জলের কারণে মশা বাহিত রোগগুলোও বৃদ্ধি পাবে। চাঁদের কারণে পৃথিবীর উপকূলীয় অঞ্চলে বন্যার পরিমাণ ও সময় বাড়বে। গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের কারণে বিশ্বজুড়ে বরফ এবং হিমবাহ গলে যাচ্ছে। এর কারণে সমুদ্রের স্তর দ্রুত বৃদ্ধি পাবে।

জাতীয় মহাসাগর ও বায়ুমণ্ডলীয় অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের দেওয়া তথ্যানুসারে, ১৮৮০ সাল থেকে সমুদ্রের জলস্তর ৮ থেকে ৯ ইঞ্চি বৃদ্ধি পেয়েছে। এই উচ্চতাগুলোর এক তৃতীয়াংশ গত ২৫ বছরে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২১০০ সাল নাগাদ, সমুদ্রের স্তর ১২ ইঞ্চি থেকে ৮.২ ফুট পর্যন্ত উঠতে পারে। এটি রোধ করতে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন হ্রাস করতে হবে। তবে কয়েক দশক লাগবে এই কাজ শেষ করতে, যা সহজ নয়।

জাতীয় মহাসাগর ও বায়ুমণ্ডলীয় অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের এক নতুন সমীক্ষা অনুসারে, চাঁদ সর্বদা সমুদ্রের তরঙ্গকে প্রভাবিত করে আসছে। চাঁদের টান এবং চাপ উভয়ই বছরের পর বছর ভারসাম্যপূর্ণ রয়েছে। চাঁদ যদি তার কক্ষপথের অবস্থান কিছুটা পরিবর্তন করে, তবে এটি পৃথিবীর উপকূলীয় অনেক অঞ্চলকে প্লাবিত করবে। কারণ চাঁদ ১৮.৬ বছরে তার জায়গায় সামান্য পরিবর্তন করে। এই সময়ের মধ্যে অর্ধেক সময়, চাঁদ পৃথিবীর ঢেউকে দমন করে। তবে অর্ধেক চক্রের পর চাঁদ তরঙ্গকে তীব্র করে তোলে। তাদের উচ্চতা বৃদ্ধি করে, যা বিপজ্জনক।

নাসা জানিয়েছে যে এখন চাঁদের ১৮.৬ বছরের পূর্ণচক্রের অর্ধেকটি শুরু হতে চলেছে, যা পৃথিবীর তরঙ্গকে ত্বরান্বিত করবে। ২০৩০ সালে এটি ঘটবে। ততক্ষণে বৈশ্বিক সমুদ্রের স্তরটি উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাবে। এই কারণে বিশ্বের অনেক দেশে নিউইসান্স বন্যার সমস্যা দেখা দেবে। আমেরিকাতে এর চেয়ে আরও বেশি সমস্যা থাকবে। কারণ সে দেশে উপকূলীয় এলাকায় অনেক পর্যটনস্থল রয়েছে।

নাসা বলেছে, জলবায়ু চক্রের এল নিনোর মতো ঘটনাও বন্যার দিকে পরিচালিত করবে। নাসার জেট প্রোপালশন ল্যাবরেটরির বিজ্ঞানী বেন হ্যামলিংটন বলেছেন- এই সমস্ত ঘটনা প্রতি মাসে ঘটবে। এটিও হতে পারে যে বছরের এক অংশে এত বন্যা হবে যে সারা বছর আপনার সমস্যা থাকবে।

প্রতিবছর পৃথিবী থেকে কিছুটা রোটেশনাল এনার্জি নিয়ে নেয় চাঁদ। ফলে নিজস্ব কক্ষপথে বছরে ৩.৮ সেন্টিমিটার উপরে চলে যাচ্ছে চাঁদ। গবেষকরা জানিয়েছেন, সৃষ্টিলগ্নে পৃথিবী থেকে ২২,৫৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল চাঁদ। কিন্তু এটি এখন ৪৫০,০০০ কিলোমিটার দূরে চলে গেছে।

সূত্র: লাইভ সায়েন্স

লাস্টনিউজবিডি

সর্বশেষ

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed

youtube
app
পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

অ্যালার্জি আছে এমন কারো করোনা টিকা নেওয়া উচিত নয় বলেছেন ব্রিটেনের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ। আপনি কি এর সাথে একমত?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
মর্কটদের থামান, ওরা যেন মাথায় ওঠে না বসে
।।মনজুরুল আহসান বুলবুল ।। ১. শিরোনামটি নিয়...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে স্কুলশিক্ষক গ্রেপ্তার
  • নওগাঁয় ট্রাক্টরের ধাক্কায় দুই ভাই নিহত
  • ‘সিন্ডিকেটরা গরীবের পেটে লাথি মারছে’

অ্যালার্জি আছে এমন কারো করোনা টিকা নেওয়া উচিত নয় বলেছেন ব্রিটেনের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ। আপনি কি এর সাথে একমত?

  • হ্যা (61%, ৮১ Votes)
  • না (24%, ৩২ Votes)
  • মতামত নাই (15%, ১৯ Votes)

Total Voters: ১৩২

Start Date: ডিসেম্বর ৯, ২০২০ @ ৮:২১ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউচি মনে করেন আসন্ন ‘বড় দিন’ মহামারির জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। আপনি কি তার এই মন্তব্যকে যথাযোগ্য মনে করেন?

  • হ্যা (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ৮, ২০২০ @ ২:০৩ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

জার্মানির বার্লিন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দেখা গেছে, নাক দিয়েও মস্তিস্কে করোনা হানা দেয়। আপনি কি মনে করেন মস্তিস্কে করোনার আক্রমণ রক্ষার্থে মাস্ক ই যথেষ্ট?

  • হ্যা (75%, ৬ Votes)
  • না (13%, ১ Votes)
  • মতামত নাই (12%, ১ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ২, ২০২০ @ ৩:১৯ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

মডার্নার, ফাইজারের করোনা ভাইরাসের টিকার মধ্যে মডার্নার টিকার উপর কি আপনার আস্থা বেশি ?

  • মতামত নাই (100%, ১ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ২, ২০২০ @ ৯:১৯ পূর্বাহ্ন
End Date: No Expiry

মার্কিন টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মডার্নার দাবি করেছেন অত্যধিক ঝুঁকিপূর্ণ রোগীর ওপর এ টিকা ১০০ শতাংশ কাজ করেছে। আপনি কি শতভাগ ফলপ্রসু মনে করেন?

  • হ্যা (100%, ১ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ১, ২০২০ @ ১২:৫১ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

 Page ১ of ২  ১  ২  »