অনিয়ম-সহিংসতায় ৭০৩ ইউপিতে ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা
Saturday, 7th May , 2016, 04:51 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

অনিয়ম-সহিংসতায় ৭০৩ ইউপিতে ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা



লাস্টনিউজবিডি, ০৭ মে, ঢাকা : সংঘর্ষ-সহিংসতা ব্যালট ছিনতাই, পুলিশকে পিটুনি ও অনিয়মের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে চতুর্থ দফার ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ।

শনিবার সকাল আটটায় দেশের ৭০৩টি ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকাল চারটা পর্যন্ত।এখন চলছে ভোট গণনা।

নির্বাচনে সকালের দিকের পরিবেশ কিছুটা শান্ত থাকলেও সময় বাড়ার সঙ্গে বাড়তে থাকে সহিংসতা। বিভিন্ন কেন্দ্রে সরকারদলীয় সমর্থক প্রার্থীদের সঙ্গে বিরোধী প্রার্থীদের সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে ঠাকুরগাঁও, কুমিল্লা ও নরসিংদীতে তিনজন নিহতসহ সারাদেশে অন্তত দেড় শতাধিক আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ১৫ জন টেঁটাবিদ্ধ হন।

গুলিবিদ্ধ হন পুলিশসহ অন্তত ১০ জন। নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে বিএনপির কয়েকজন প্রার্থী ভোট বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। এছাড়া নির্বাচনের আগের দিন জাল ভোট দেয়ার অভিযোগে দায়িত্বে থাকা ছয় নির্বাচন কর্মকর্তাকে আটক করা হয়।

এদের মধ্যে একজনকে কারাদণ্ড দেয়া হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদের ওপর ভিত্তি করে নির্বাচনের চালচিত্র পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

আমাদের কুমিল্লা প্রতিনিধি জানান, ভোটকেন্দ্রে প্রভাব বিস্তার নিয়ে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার একটি ভোটকেন্দ্রে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে তাপস চন্দ্র পাল নামে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন।

সকাল ১০টার দিকে মাধবপুর ইউনিয়নের উত্তর চন্দলা স্কুল বাজার ভোটকেন্দ্রে মেম্বার প্রার্থী রেজাউল ও সুলতাদের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

02

নিহত তাপস চন্দ্র পাল ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বাসিন্দা। তিনি মেম্বার প্রার্থী রেজাউলের সমর্থক বলে ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান জানিয়েছেন।

নরসিংদী প্রতিনিধি জানান, রায়পুরা উপজেলার শ্রীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে সুমন নামে এক যুবক মারা গেছেন। সংঘর্ষে টেঁটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। তাদের জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, জাল ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে শ্রীনগর রংপুর কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রিয়াজ মোর্শেদ খান রাসেল ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী আযান চৌধুরীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি জানান, জেলার বালিয়াডাঙ্গীর পরিয়া ইউনিয়নে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে একজন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়েছে। ভোটগ্রহণের শেষ মুহূর্তে এই সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নামপরিচয় জানা যায়নি।

ফেনী: জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলায় শুভপুর ইউনিয়নের জগন্নাথ সোনাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল নয়টার দিকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে চারজন গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

গুলিবিদ্ধরা হলেন- জহিরুল ইসলাম, মো. বাবলু, মো. ইউনুস, কবির হোসেন। তাদের ফেনী আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের পরও ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ চলছে।

কুমিল্লা: কুমিল্লার চান্দিনায় নৌকা মার্কার সমর্থকরা অস্ত্রের মুখে এক হাজার ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে সিল মেরে বাক্স ভর্তি করায় জোয়াগ ইউনিয়নের জোয়াগ দাখিল মাদরাসা কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

মাদারীপুর: মাদারীপুরের কালকিনিতে কেন্দ্রে ঢুকে নৌকা প্রতীকে জোর করে সিল মারতে বাধা দেয়ায় এক পুলিশ সদস্যসহ পাঁচজনকে পিটিয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার কয়ারিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে বিএনপি-জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ভোট বর্জন করেছে। এদের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া ও বিজয়নগর উপজেলার ১৫টি ইউপির মধ্যে ১০টিতে ভোট বর্জন করেছেন বিএনপি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান প্রার্থীরা।

এছাড়া কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কংকাপইতি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী, ফেনীর ধলিয়া ইউপির ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মাওলানা মোহাম্মদ ইসমাইল, লেমুয়া ইউপির একই দলের প্রার্থী একরামুল হক ভূঞা ও বিএনপির প্রার্থী জাকের হোসেন জসিম নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা নিয়েছেন।

এদিকে ভোটের আগের রাতে ব্যালট পেপারে সিল মারা এবং সিল মারায় সহযোগিতা করায় সারাদেশে নির্বাচনের দায়িত্ব দেয়া ছয় কর্মকর্তাকে আটক করা হয়।

তারা হলেন-কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের মুন্সিরহাট ইউনিয়নের যুগীরহাট কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার মোবারক হোসেন, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার তাজুল ইসলাম ও ওসমান আলী, জামালপুরের বক্সিগঞ্জ উপজেলার সাদুরপাড়া ইউনিয়নের নজরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার এ কে এম আকরামুজ্জামান ও আরচাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিজাইডিং অফিসার মো. আনিসুজ্জামান আকন্দ, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আব্দালপুর ইউনিয়নের পশ্চিম আব্দালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আশরাফ উদ্দিন এবং শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার হাতিবান্দা ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার আব্দুল বারী।

লাস্টনিউজবিডি, এ এস

Print Friendly, PDF & Email

You must be logged in to post a comment Login

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >
আর্কাইভ
মতামত
বাংলাদেশে সাংবাদিকতার সঙ্কট ও সম্ভাবনা: বর্তমান প্রেক্ষিত
।।মনজুরুল আহসান বুলবুল।। গণমাধ্যম বা সাংবাদিকত...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক দাবীতে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন
  • কুড়িগ্রামে পৈতৃক সম্পত্তি রক্ষায় কৃষক পরিবারের সংবাদ সম্মেলন
  • স্বামী পরিত্যক্তা নারীকে ধর্ষণ: যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

[page_polls]