এমওটিএন প্রকল্পের ৫০ ভাগ কাজ শেষ (আপডেট)
Wednesday, 25th November , 2020, 07:17 am,BDST
Print Friendly, PDF & Email

এমওটিএন প্রকল্পের ৫০ ভাগ কাজ শেষ (আপডেট)



আলীমুজ্জামান হারুন : বিটিসিএল এর “মর্ডানাইজেশন অফ টেলিকমিউনেকেশন নেটওয়ার্ক” (এমওটিএন) প্রকল্পের কাজ ইতোমধ্যেই ৪০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে । ৩ বছর মেয়াদী এই প্রকল্পের বাকী কাজ নির্ধরিত সময়ে শেষ হবার ব্যাপারে আশবাদি প্রকল্প পরিচালক মো: আসাদুজ্জামান চৌধুরী ।

সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ দৃষ্টিভঙ্গির কারণে বাংলাদেশ আইসিটি খাতে ব্যাপক এগিয়ে গেছে। “ বাংলাদেশ এশিয়ার সর্বোচ্চ আইসিটি উন্নতি বৃদ্ধির হারের মধ্যে একটি” বলে জানান, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার । তিনি জানান, বিশ্বের যে গুটিকয় দেশ পঞ্চম প্রজন্মের (ফাইভজি) মোবাইল নেটওয়ার্ক চালু করছে তার মধ্যে বাংলাদেশও নাম লেখাতে যাচ্ছে । ফাইভজি বিশ্বব্যাপী বহু মানুষের জীবনে পরিবর্তন আনবে। ফোরজির চেয়েও ৪০ গুণ দ্রুতগতির ইন্টারনেট অভিজ্ঞতা দেবে ফাইভজি। এর মাধ্যমে স্বচালিত কার থেকে রোবটের কার্যক্রম সহজ হবে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ‘ফাইভজি কথা বলা বা ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য। জীবনযাপনের জন্য ছোট্ট ঢেউ নয়। এর সঙ্গে দেশের মানুষ ও শিল্পকে সংশ্লিষ্ট করতে কাজ করছে সরকার। তাই আমরা এবার বরাবরের মতো ট্রেন মিস করব না ।

মন্ত্রীর এই আশাবাদের বা অঙ্গীকারের বাস্তবায়ন করছে বিটিসিএলের এমওটিএন প্রকল্প । সারা দেশের ইউনিয়ন পর্যায়ে বসানো হচ্ছে অপটিকাল ফাইবার ।

এ বিষয়ে এই প্রকল্পের পরিচালক মো: আসাদুজ্জামান চৌধুরী জানান, পুরোদমে কাজ এগিয়ে চলছে । ২ হাজার ৫শ‍‍‌‌‌‌ ৭৩ কোটি টাকার এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে টেলিযোগাযোগ খাতে সেবা প্রদান, সেবার নির্ভরযোগ্যতা, নেটওয়ার্ক রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনা এবং ভবিষ্যৎ সম্প্রসারণ সব ক্ষেত্রেই বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে।

বহুজাতিক চীনা টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি জেডটিই কর্পোরেশন এই প্রকল্পের কাজ করছে। পুরাতন এক্মচেঞ্জগুলো পরিবর্তন করে অত্যাধুনিক করা হচ্ছে । এতে থাকবে নানা সুবিধা ।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, মাঠ পর্যায়ে কারিগরি জনবলকে পিডিএ (পারসোন্যাল ডিজিট্যাল এসিস্ট্যান্স) ডিভাইস প্রদান করা হবে। এ কার্যক্রমে কোনো গ্রাহকের আবেদন প্রক্রিয়াকরণের সঙ্গে সঙ্গেই প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পিডিএ ডিভাইসে চলে আসবে। সংযোগ নিশ্চিত করার পর তথ্য পিডিএ থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কেন্দ্রীয় সিস্টেমে স্থানান্তরিত হবে। অর্থাৎ একটি নতুন সংযোগের পুরো প্রক্রিয়া হবে পেপারলেস বা কাগজবিহীন। এতে নতুন সংযোগ প্রদানে বর্তমানে গ্রাহকরা যে ধরনের বিড়ম্বনা ভোগ করেন সে ধরনের বিড়ম্বনা আর থাকবে না বলে প্রকল্প পরিচালক মো: আসাদুজ্জামান চৌধুরী আশাবাদবাক্ত করেন।

এই প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক বিটিসিএলের সৎ, মেধাবী কর্মকর্তা হিসাবে পরিচিত জিএম আসাদুজ্জামান এই কাজের তদারকি করছেন । তিনি বিটিসিএলের শুরু থেকে কোস্পানী সচিবেরও দায়িত্ব পালন করেছেন ।

বিটিসিএল সূএ জানায়, ১৬ লাখ গ্রাহক ধারণক্ষমতার আইএমএস কোর এক্সচেঞ্জকে তিনটি ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। ঢাকায় ৭ লাখ, চট্টগ্রামে ৫ লাখ এবং খুলনায় চার লাখ গ্রাহক এর সুবধিা পাবনে। এসব কোর এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে সারাদেশে গ্রাহক ব্যবস্থাপনা করা হবে। ভৌগোলিকভাবে তিনটি স্থান থেকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হওয়ায় যেকোনো পরিস্থিতিতে গ্রাহক সেবা অব্যাহত রাখা যাবে। বর্তমানে স্থানীয়ভাবে গ্রাহক ব্যবস্থাপনা করা হচ্ছে। তবে পর্যাপ্ত দক্ষ জনবলের অভাবে দেশের সর্বত্র উন্নত মানের সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। প্রস্তাবিত আইএমএস কোরের মাধ্যমে এ সীমাবদ্ধতা সহজে দূর করা সম্ভব হবে। তাই সারাদেশে পুরনো ডিজিটাল এক্সচেঞ্জগুলোর স্থলে ৫৬০টি এজিডবিøউ এক্সচেঞ্জ প্রতিস্থাপন করা হবে। এজিডবিøউ এক্সচেঞ্জের মোট ক্ষমতা হবে ৪,৩১,১২০।

বিটিসিএলের সাম্প্রতিক প্রকল্পে ঢাকা ও চট্টগ্রামে অপটিক্যাল ফাইবারভিত্তিক গ্রাহক সংযোগের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বর্তমানে আইসিটি যুগে এরূপ চাহিদা ব্যাপক। এমওটিএন প্রকল্প দেশের বড় শহরগুলোতে (মূলত বৃহত্তর জেলা শহর) অপটিক্যাল ফাইবারভিত্তিক গ্রাহক ও অফিস সংযোগের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এ ব্যবস্থা ব্রডব্যান্ড চাহিদা পূরণ করবে। গ্রাহক পর্যায়ে দুই লাখ ৮০ হাজার সংযোগ (এফটিটিএইচ জিপিওএন) এবং অফিস পর্যায়ে পাঁচ হাজার সংযোগরে (এফটিটিও) ব্যবস্থা রয়েছে।স

বিটিসিএলের বিদ্যমান ট্রান্সমিশন লিঙ্কের সমন্বয় করে নতুন স্থাপিত লিঙ্ক মিলিয়ে সারাদেশে উচ্চ ক্ষমতার (ডিডবিøউডিএম) ৮টি রিং তৈরি করা হবে। এতে দেশব্যাপী ট্রান্সমিশনের মেরুদন্ড হবে সম্পূর্ণ নির্ভরযোগ্য। যেকোনো দুর্যোগে লিঙ্কের কোনো অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ট্রান্সমিশন সেবা ব্যাহত হবে না। সারাদেশে যাবতীয় টেলিফোন সেবা নিরবচ্ছিন্ন থাকবে। একই কারণে ঢাকায় তিনটি মেট্রো রিং এবং চট্টগ্রামে একটি মট্রেো রিং তৈরি করা হবে। মোট ১,২৪০ কিলোমিটার অপটিক্যাল ফাইবার স্থাপন করা হবে।

ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনায় তিন জোড়া (এক+এক রিডানডেন্সি) কোর রাউটার স্থাপন করার মধ্য দিয়ে সারাদেশে আইপি নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে। এর ফলে দেশের সব অংশ থেকে চাহিদা মোতাবেক ইন্টারনেট ও আইসিটিভিত্তিক ব্রডব্যান্ড সেবা পাওয়া যাবে। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনায় আইআইজি (ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে) থাকায়, কক্সবাজার কুয়াকাটার মাধ্যমে সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ এবং বেনাপোল হয়ে ভারতের মাধ্যমে সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ স্থাপিত হবে। তিনটি স্বতন্ত্র ভৌগোলিক সংযোগ থাকায় যেকোনো দুর্যোগে আন্তর্জাতিক ইন্টারনেট ও ডাটা সংযোগ নিরবচ্ছিন্ন থাকবে। ইন্টারনেট সংযোগে নিরবচ্ছিন্ন ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরি ও অপরিহার্য।

যাবতীয় গ্রাহকসেবাকে অটোমেশনের আওতায় আনার লক্ষ্যে ২০ লাখ গ্রাহক ক্ষমতার বস (বিজনেস অপারেশন এন্ড সাপোর্ট সিস্টেম) স্থাপন করা হবে।
বিজনেস সাপোর্ট সিস্টেমের অন্তর্ভুক্ত হলো: গ্রাহক ব্যবস্থাপনা, পণ্য ব্যবস্থাপনা, গ্রাহক সেবা, ওয়েব সেলফ-কেয়ার, বিলিং এন্ড রেটিং, জব্দ ব্যবস্থাপনা ইনভয়েসিং। অপারেশন সাপোর্র্ট সিস্টেমে (ওএসএস) রয়েছে ত্রুটি ব্যবস্থাপনা, সম্পদ ব্যবস্থাপনা, গোলযোগ ব্যবস্থাপনা, জনশক্তি ব্যবস্থাপনা এবং শৃঙ্খলা ব্যবস্থাপনা।

বিজনেস সাপোর্ট সিস্টেমের আওতায় গ্রাহকদের আবেদন প্রক্রিয়া, আবেদনপরবর্তী প্রক্রিয়াকরণ, অভিযোগ দায়ের, অভিযোগ নিষ্পত্তিকরণ, নেটওয়ার্কের ক্রটি দূরীকরণ, বিল ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি যাবতীয় কার্যক্রম অটোমেশনের আওতায় আসবে। এতে কমপক্ষে ২০ লাখ গ্রাহক উপকৃত হবে।

বস সিস্টেমে নেটওয়ার্ক অপারেশন সেন্টার (এনওসি) বা ২০টি অপারেটরস চেয়ার ৯টি বড় এলসিডি পর্দাসম্বলিত একটি বড় এনওসি থাকবে যেখান থেকে সার্বক্ষণিক সম্পূর্ণ নেটওয়ার্ক মনিটর ও প্রয়োজনীয় নিদের্শনা প্রদান করা যাবে।

সারাদেশে বিটিসিএলের বিদ্যমান অপটিক্যাল ফাইবার এবং এমওটিএন প্রকল্পের আওতায় স্থাপিতব্য অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ককে একীভূত করে একটি সমন্বিত কম্পিউটারাইজড মডেল তৈরি করা হবে। এ ব্যবস্থার আওতায় সারাদেশে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক স্ট্যাটাস রিপোর্র্ট কেন্দ্রীয়ভাবে মনিটর করা যাবে। নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ, সম্পদের উপযুক্ত ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, যেকোনো প্রান্তে সেবার সম্ভাব্যতা যাচাই, ভবিষ্যত পরিকল্পনা প্রণয়ন ইত্যাদি কাজে ই-ডিজাইন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

এমওটিএন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে সারাদেশব্যাপী বিটিসিএলের একটি সুবিন্যস্ত, সমন্বিত ও শক্তিশালী নেটওয়ার্ক তৈরি হবে আশা করা যায়, এবং আধুনিক পদ্ধতিতে গ্রাহকবান্ধব সেবা প্রদান করা সম্ভব হবে। এটা হবে বাংলাদশেরে টলেযিোগাযোগ খাতে বিপ্লব সাধতি হবে এবং বিটিসিএলকে এক অনন্য উচ্চতায় উন্নীত করবে।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের মেরুদন্ড হচ্ছে ডিজিটাল সংযুক্তি: মোস্তাফা জব্বার

বাংলাদেশ বিশ্বে ডিজিটাল বিপ্লবের পথ প্রদর্শক: মোস্তাফা জব্বার

বিটিসিএলের মাঠ পর্যায়ে কঠোর বার্তা, নড়েচড়ে বসেছে কর্মকর্তারা!
Print Friendly, PDF & Email

You must be logged in to post a comment Login

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

জার্মানির বার্লিন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দেখা গেছে, নাক দিয়েও মস্তিস্কে করোনা হানা দেয়। আপনি কি মনে করেন মস্তিস্কে করোনার আক্রমণ রক্ষার্থে মাস্ক ই যথেষ্ট?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
যুবলীগের নতুন নেতৃত্বঃ পরশের পরশ ছোঁয়ায় জেগে উঠুক কোটি তরুণ
।।মানিক লাল ঘোষ।।"আমার চেষ্টা থাকবে যুব সমাজ যেনো...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • হয়নি সীমান্ত মেলা: দেখা না করেই ফিরলেন স্বজনরা
  • বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য উচ্ছেদের হুমকি প্রদানকারীদের বিচারের দাবি
  • দিবালোকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জমি দখলের অভিযোগ

জার্মানির বার্লিন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দেখা গেছে, নাক দিয়েও মস্তিস্কে করোনা হানা দেয়। আপনি কি মনে করেন মস্তিস্কে করোনার আক্রমণ রক্ষার্থে মাস্ক ই যথেষ্ট?

  • হ্যা (67%, ৪ Votes)
  • না (17%, ১ Votes)
  • মতামত নাই (16%, ১ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ২, ২০২০ @ ৩:১৯ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

মডার্নার, ফাইজারের করোনা ভাইরাসের টিকার মধ্যে মডার্নার টিকার উপর কি আপনার আস্থা বেশি ?

  • মতামত নাই (100%, ১ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ২, ২০২০ @ ৯:১৯ পূর্বাহ্ন
End Date: No Expiry

মার্কিন টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মডার্নার দাবি করেছেন অত্যধিক ঝুঁকিপূর্ণ রোগীর ওপর এ টিকা ১০০ শতাংশ কাজ করেছে। আপনি কি শতভাগ ফলপ্রসু মনে করেন?

  • হ্যা (100%, ১ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: ডিসেম্বর ১, ২০২০ @ ১২:৫১ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান, চায়নার ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • না (67%, ২ Votes)
  • মতামত নাই (33%, ১ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৫:২৮ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান ইন, চায়না ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • হ্যা (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৪:৫৭ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

 Page ১ of ২  ১  ২  »