শব্দদূষণে আপনার কী ক্ষতি হচ্ছে ?
Tuesday, 6th June , 2017, 05:25 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

শব্দদূষণে আপনার কী ক্ষতি হচ্ছে ?



লাস্টনিউজবিডি, ০৬ জুন, ঢাকা : শব্দদূষণের সহনীয় সর্বোচ্চ মাত্রা পার হয়ে বিপজ্জনক মাত্রাকেও ছাড়িয়ে গেছে। এর কারণে কানে না শোনা, মেজাজ খিটখিটে, উৎকন্ঠা, মানসিক অস্থিরতা, স্নায়ুচাপ, ক্ষণস্থায়ী রক্তচাপ বৃদ্ধি, উচ্চ রক্তচাপ, ঘুম না হওয়া ও এক ধরনের শব্দভীতি তৈরি হয়।

দীর্ঘদিনের শব্দদূষণের ফলে কেউ কেউ বধিরও হয়ে যেতে পারেন। এমনকি উচ্চ মাত্রার শব্দের কারণে হৃদরোগীর রক্তচাপ ও হৃৎকম্পন বেড়ে গিয়ে মৃত্যুঝুঁকিও হতে পারে।

সম্প্রতি এক জরিপে দেখা গেছে, রাজধানীর ফার্মগেটে শব্দদূষণের মাত্রা ১৩০ দশমিক ২ ডেসিবল। এক বছর আগে ২০১৬ সালে সংস্থাটি জানিয়েছিল, দূষণের সর্বোচ্চ মাত্রা ১১৪ দশমিক ৭ ডেসিবেল ছিল রাজধানীর শংকর এলাকায়। একবছর পর তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩০ দশমিক ২ ডেসিবেলে। ফার্মগেট ছাড়া উত্তরার ১৪ নম্বর সেক্টরের ১৮ নম্বর সড়ক এলাকায় সর্বোচ্চ মাত্রা রেকর্ড হয় ৯৯ দশমিক ৬ ডেসিবেল।

রাজধানীর বাইরে কোথাও কোথাও শব্দদূষণের আরও খারাপ চিত্র পাওয়া গেছে। রাজশাহীর ভদ্রার মোড় এলাকায় দূষণের সর্বোচ্চ মাত্রা ১৩২ দশমিক ৮ ডেসিবেল, যা ঢাকার চেয়েও বেশি। আর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ এলাকায় সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৯৫ দশমিক ৫ ডেসিবেল। এছাড়া চট্টগ্রামের ইপিজেড মোড় এলাকায় সর্বোচ্চ ১৩০ দশমিক ৬, পোর্ট কলোনী মোড়ে সর্বোচ্চ ৯৯ দশমিক ৩; সিলেটের করিমউল্লাহ মার্কেট এলাকায় সর্বোচ্চ ১৩০ দশমিক ৬, কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় সর্বোচ্চ ৮১ দশমিক ৮; খুলনার নিউমার্কেট এলাকায় সর্বোচ্চ ১২৮ দশমিক ৯, সরকারি মহিলা কলেজ মোড়ে সর্বোচ্চ ১০৩ দশমিক ৭; বরিশালের কাশিমপুর বাজার এলাকায় সর্বোচ্চ ১৩১ দশমিক ৩, বরিশাল জিলা স্কুল এলাকায় সর্বোচ্চ ১২২ দশমিক ৩; রংপুরের বাস টার্মিনাল এলাকায় সর্বোচ্চ ১৩০ দশমিক ১, কামাল কাছনা-গুঞ্জন মোড়ে ৮৭ দশমিক ৩; ময়মনসিংহের ধোপাখোলা মোড় এলাকায় ১২৯ দশমিক ৯, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় সর্বোচ্চ ৮৭ দশমিক ৭ ডেসিবেল।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, ৬০ ডেসিবেল শব্দে মানুষের সাময়িক শ্রবণশক্তি নষ্ট এবং ১০০ ডেসিবেল শব্দে চিরতরে শ্রবণশক্তি হারাতে পারে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নাক কান ও গলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক দেবেশ চন্দ্র তালুকদার প্রিয়.কম-কে বলেন, ‘শব্দ দূষণের স্বাভাবিক মাত্রা অতিক্রম করলে আমাদের কানের টিস্যুগুলো ধীরে ধীরে বিকল হয়ে পড়ে।

যারা দীর্ঘ সময় শব্দ দূষণের মধ্যে থাকেন, তারা একপর্যায়ে কানে কম শুনতে পান এবং এ সমস্যা এক পর্যায়ে স্থায়ী রূপ নেয়। তারা যেমন নিজেরা কম শুনতে পান, তেমনি নিজেরাও জোরে কথা বলতে শুরু করেন।

তিনি জানান, কোনো ধরনের শব্দ কানে প্রবেশের দুটি স্তর রয়েছে। এর একটি পরিবহন হিসেবে কাজ করে, একে কনডাকশান বলে। অন্যটি শব্দটি গ্রহণ করে মস্তিষ্কে নিয়ে যায়, যাকে পারসেপশান বলে। শব্দদূষণের ভেতরে থাকলে কানের পারসেপশান স্তর ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ধীরে ধীরে শব্দ শোনার ক্ষমতা হারিয়ে যায়।

ডাক্তার দেবেশ চন্দ্র তালুকদার আরও বলেন, ‘শব্দদূষণে বেশি ক্ষতি হয় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের ও ভারী কারখানায় যারা কাজ করেন। দীর্ঘ সময় তারা বাধ্যতামূলকভাবে শব্দের ভেতরে থাকতে হয়। ফলে তাদের কানের সমস্যা ছাড়াও মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়, সামান্যতেই বিরক্তিবোধ করেন এবং অনেকে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েন।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতির শিকার হচ্ছে শিশুরা। মাত্রাতিরিক্ত শব্দের কারণে শিশুরা ভয় পাচ্ছে। মনোযোগে ব্যাঘাত ঘটছে। ফলে তাদের মানসিক বিকাশ হচ্ছে না বলেও জানান ঢাকা মেডিকেল কলেজের এই চিকিৎসক।

এদিকে শব্দদূষণ হৃদরোগীদের জন্যও ক্ষতিকর বলে জানান একই কলেজের কার্ডিওলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক আব্দুল ওয়াদুদ চৌধুরী। তিনি জানান, উচ্চ মাত্রার শব্দের কারণে হৃদরোগীর রক্তচাপ ও হৃৎকম্পন বেড়ে গিয়ে মৃত্যুঝুঁকিও হতে পারে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাক, কান ও গলা বিভাগের ২০১৩ সালের জরিপ অনুযায়ী, দেশে এক-তৃতীয়াংশ লোক কোনো না কোনো শ্রুতিক্ষীণতায় ভুগছেন এবং ৯.৬ শতাংশ শ্রুতি প্রতিবন্ধী। একইসঙ্গে দেশে ১৫ বছর বয়সের নিচের জনসংখ্যার মধ্যে শ্রুতি প্রতিবন্ধীর হার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় ২.৫ শতাংশ বেশী।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বে বধিরতার হার ক্রমশই বাড়ছে। বিশ্বের ১৫ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনো পর্যায়ের শ্রুতিক্ষীণতায় ভুগছেন। আবার তাদের অধিকাংশই শিশু, যারা আগামী দিনে জাতিকে এগিয়ে নেবে। আর বিশ্বের ৫ শতাংশ লোক বধিরতায় ভুগছেন, যা তাদের নিত্যদিনের কার্যক্রম এবং জীবন-জীবিকার উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলছে। সংস্থাটি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াকে শ্রুতিক্ষীণতার জন্য ঝুকিপূর্ণ অঞ্চল হিসাবে চিহ্নিত করেছে।

লাস্টনিউজবিডি, এ এস

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed

পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান, চায়নার ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
যুবলীগের নতুন নেতৃত্বঃ পরশের পরশ ছোঁয়ায় জেগে উঠুক কোটি তরুণ
।।মানিক লাল ঘোষ।।"আমার চেষ্টা থাকবে যুব সমাজ যেনো...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসের য...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • দিবালোকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জমি দখলের অভিযোগ
  • রেলের উচ্ছেদ হওয়া ১৫০ পরিবারের পূণর্বাসন বন্দোবস্ত
  • বিরল প্রজাতির শুকুন পাখি উদ্ধার

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান, চায়নার ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • না (67%, ২ Votes)
  • মতামত নাই (33%, ১ Votes)
  • হ্যা (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৫:২৮ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

ফাইজার, অক্সফোর্ড, রাশিয়ান ইন, চায়না ভ্যাকসিনগুলোকে আপনি কি করোনা প্রতিরোধক কার্যকর টিকা বলে মনে করেন?

  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • হ্যা (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৪:৫৭ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

কোন দেশের কোন কোম্পনীর করোনা ভ্যাকসিন আপনার পছন্দের এবং কার্যকর বলে মনে করেন ?

  • হ্যা (100%, ১ Votes)
  • না (0%, ০ Votes)
  • মতামত নাই (0%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ২৯, ২০২০ @ ৮:৫৮ পূর্বাহ্ন
End Date: No Expiry

আপনি কি মনে করেন বাসে আগুন দিয়ে কি সরকার পরিবর্তন করা যাবে ?

  • না (63%, ১৫ Votes)
  • হ্যা (29%, ৭ Votes)
  • মতামত নাই (8%, ২ Votes)

Total Voters: ২৪

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry

How Is My Site?

  • Good (0%, ০ Votes)
  • No Comments (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Excellent (100%, ০ Votes)

Total Voters:

Start Date: নভেম্বর ১৩, ২০২০ @ ২:৫৪ অপরাহ্ন
End Date: No Expiry