Loading...
Tuesday, 25th September , 2018, 10:59 am,BDST
Print Friendly, PDF & Email

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: উদ্বেগ কোথায়?



লাস্টনিউজবিডি,২৫ সেপ্টেম্বর,নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশে ২০১৩ সালে আইসিটি আইনে ৫৭ ধারা যুক্ত হওয়ার পর গত কয়েকবছর ধরে এই আইনে নাগরিকদের গ্রেফতার ও হয়রানির অভিযোগ তুলে ধারাটি বাতিলের অভিযোগ করে আসছিলেন গণমাধ্যম ও মানবাধিকার-কর্মীরা।

সরকারও ধারাটি বাতিল করে সাইবার অপরাধ দমনে নতুন একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের কথা বলেছিল।

Loading...

কিন্তু গত ১৯ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পাসের পর দেখা যাচ্ছে সেখানে ৪টি ধারায় ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বিতর্কিত ৫৭ ধারাটিকে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।
এমনকি নতুন এই আইনে জনগণের মতপ্রকাশের অধিকার আরও বেশি খর্ব হবে বলেও আশংকা করছেন অনেকে।

সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আসলে কি বলা আছে? আর এটা নিয়ে এতো উদ্বেগই বা কেন?

বাংলাদেশে সংবাদপত্রের সম্পাদকদের সংগঠন ‘এডিটরস কাউন্সিল’ এর সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আনাম মনে করেন, এই আইনের ফলে গণমাধ্যম-কর্মীদের কাজের সুযোগ সংকুচিত হয়ে যাবে।বাংলাদেশে ২০১৩ সালে আইসিটি আইনে ৫৭ ধারা যুক্ত হওয়ার পর গত কয়েকবছর ধরে এই আইনে নাগরিকদের গ্রেফতার ও হয়রানির অভিযোগ তুলে ধারাটি বাতিলের অভিযোগ করে আসছিলেন গণমাধ্যম ও মানবাধিকার-কর্মীরা।

তিনি বলছিলেন, ”আইনের ৩২ ধারায় বলা আছে ডিজিটাল মাধ্যমে সরকারি গোপনীয়তা ভঙ্গ করা হলে ১৪ বছরের সাজা। এখন সরকারি গোপনীয়তা কী? যে কোন জিনিষ যেটা সরকার অফিসিয়ালি জনগণকে জানাচ্ছে না, সেটাই তো সিক্রেট থেকে যাচ্ছে। এই আইন অনুযায়ী সেটা তো জনগণের জানার অধিকার নেই। কারণ সরকার সেটা জানাচ্ছে না। কিন্তু সাংবাদিকদের তো সেটা জানাই ২৪ ঘণ্টার কাজ। এটা তো স্টেট সিক্রেট হওয়ার ফলে আমি তো আর এখানে সাংবাদিকতা করতে পারবো না।”

তার মতে, পরোয়ানা ছাড়াই আইনের ৪৩ ধারায় তল্লাশি, জব্দ ও গ্রেফতারের যে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে, তাতেও চাপের মুখে পড়বেন গণমাধ্যম-কর্মীরা।

”৪৩ ধারা অনুযায়ী, কোন পুলিশ অফিসার যদি আমার মিডিয়া অফিসে এসে তল্লাশি করেন এবং মনে করেন যে তদন্তের স্বার্থে আমার অফিসিয়াল সার্ভারে তার ঢোকা দরকার এবং তিনি যদি সার্ভার জব্দ করেন, তাহলে অপরাধের আলামত থাকুক আর না থাকুক সার্ভার জব্দ হওয়ায় আমার ঐদিনের প্রকাশনা তো বন্ধ রাখতে হবে।”

”এটা কয়েকদিনও বন্ধ থাকতে পারে। এমনকি সরকার কোন খবরের কাগজ বন্ধ করার আদেশ না দিয়েও কাগজটা বন্ধ করে দিতে পারেন শুধু সার্ভারটা যদি উনারা কব্জা করে নেন।” বলছিলেন মাহফুজ আনাম।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৫৩ ধারায় বলা আছে আইনের ১৪টি ধারা থাকবে অ-জামিনযোগ্য। এক্ষেত্রে মানবাধিকার ঝুঁকির মুখে পড়বে বলে মত মানবাধিকার আন্দোলনের নেত্রী সুলতানা কামাল।

তিনি বলছিলেন, ”আইনে ১৪ টি ধারা অ-জামিনযোগ্য করা হয়েছে। এসব ধারায় কাউকে গ্রেফতার করলে তার আর জামিন হবে না। এবং তার অপরাধ প্রমাণ হতে হতে হয়তো বেশ কিছুদিন চলে যাবে। ততদিন তাকে গ্রেফতার থাকতে হবে। শুধু সন্দেহের উপরে যখন তখন যে বাহিনীর যেটা কাজ না তাকে দিয়ে এরকম কাজ করা যায় না।”

গণমাধ্যম এবং মানবাধিকার কর্মীদের আরেকটা বড় উদ্বেগ আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ফলে যেটা বাতিল হয়ে গেছে।

কিন্তু বাতিল হওয়া ৫৭ ধারাটি কয়েকটি ভাগে ভাগ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে বলে জানাচ্ছেন তারা।

নতুন আইনের ২৫, ২৮, ২৯ ও ৩১ ধারায় ডিজিটাল মাধ্যমে ব্যক্তি ও রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত, কারো মানহানি কিংবা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি বা আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর মতো বিষয়গুলোকে অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

যেগুলোর শাস্তি ক্ষেত্র বিশেষে তিন থেকে সাত বছরের কারাদণ্ড।

কিন্তু সুলতানা কামাল মনে করেন, এই ধারাগুলোতে অপরাধগুলো সুস্পষ্টভাবে সংজ্ঞায়িত না হওয়ায় এসবের অপব্যবহারের যথেষ্ট সুযোগ থেকেই যাচ্ছে। তবে দেশে সাইবার অপরাধ দমনে যে সুস্পষ্ট আইন থাকা দরকার সে বিষয়ে অবশ্য ভিন্নমত নেই কারো।

ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম বলছিলেন, ”সাইবার অপরাধীদের জন্য আইন থাকবে। এতে আমরা আপত্তি তুলতে পারি না। কিন্তু এ আইনে যখন গণমাধ্যমকেও অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে, তখন তো সাংবাদিকরা জেল-জরিমানার খড়গ নিয়ে কাজ করতে পারবেন না।”

মি. আনাম বলছিলেন, আইনটি সংসদে তোলার আগে এ সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির সঙ্গে সম্পাদকদের যে বৈঠক হয়েছিলো সেখানে তারা সাইবার অপরাধ ও গণমাধ্যমকে একাকার না করার জন্য কিছু প্রস্তাব তুলে ধরেছিলেন।

”কমিটিতে আমাদের মূল বক্তব্য ছিল যে, আপনারা এই ধারাতে একটা প্রভিশন আনেন যে এই আইন গণমাধ্যমের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। যদি সেটা করতে না পারেন তাহলে এমনটা করেন যে গণমাধ্যমের ক্ষেত্রে যখনি এ আইনের কোন প্রয়োগ আসবে সেটা যেন প্রেস কাউন্সিল হয়ে আসে। কিন্তু এগুলো মানা হয়নি

তবে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ইমরান আহমদ দিচ্ছেন ভিন্ন যুক্তি।

‘উনারা অনেক প্রস্তাবই দিয়েছিলেন, আমরা সেগুলো বিবেচনা করে দেখেছি। ডিজিটাল মাধ্যমে যখন কোন একটা অপরাধ হয়, সেখানে তো তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ না নিলে সেটা দমন করা যাবে না। আমরা তো প্রেস কাউন্সিলের জন্য অপেক্ষা করতে পারি না। এখানে আসল কথা হচ্ছে সবাই যদি সতর্ক থাকেন, বেআইনি কিছু না করেন, তাহলে তো কারো বিরুদ্ধে কিছু হবে না।’

মি. আহমদ বলছেন, এই আইনে অযথা কারো হয়রানি হওয়ার কোন সুযোগ নেই। কিন্তু বাংলাদেশের বাস্তবতায় এর যে অপব্যবহার হবে না তার নিশ্চয়তা কে দেবে?” সূত্র-বিবিসি

লাস্টনিউজবিডি/তাওহীদ

Print Friendly, PDF & Email
Loading...
Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed

diamond world
Rupali bank ltd
exim bank
Lastnewsbd.com
পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

একবার ভোট বর্জন করায় অনেক খেসারত দিতে হয়েছে মন্তব্য করে আর নির্বাচন বয়কটের আওয়াজ না তুলতে জোট নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণফোরাম সভাপতি কামাল হোসেন, আপনি কি একমত ?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
তাবলীগ জামাতের সংকট ও সমাধানের পথ
।।মোহাম্মদ ইমাদ উদ্দীন।। দ্বীন ইসলাম প্রচার ও প্র...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
সফল হওয়ার গল্প, সাফল্যের পথ
।।আলীমুজ্জামান হারুন।। ১৯৮১ সালে যখন নিটল মটরসে...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • দেশকে আলোর পথে এগিয়ে নিতে নৌকায় ভোট দিন
  • নীলফামারীতে প্রতীক বরাদ্দ পেল ১৯ জন প্রার্থী
  • ডিমলায় অগ্নিকান্ডে ৯টি বসতবাড়ী পুড়ে ছাই

একবার ভোট বর্জন করায় অনেক খেসারত দিতে হয়েছে মন্তব্য করে আর নির্বাচন বয়কটের আওয়াজ না তুলতে জোট নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণফোরাম সভাপতি কামাল হোসেন, আপনি কি একমত ?

  • মতামত নাই (4%, ১ Votes)
  • না (4%, ১ Votes)
  • হা (92%, ২৩ Votes)

Total Voters: ২৫

সংলাপ সফল হবে বলে আপনি মনে করেন ?

  • হা (13%, ২ Votes)
  • মতামত নাই (13%, ২ Votes)
  • না (74%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

  • মতামত নাই (7%, ৭ Votes)
  • না (23%, ২৩ Votes)
  • হ্যা (70%, ৭১ Votes)

Total Voters: ১০১

অাপনি কি কোটা সংস্কারের পক্ষে ?

  • মতামত নেই (3%, ১ Votes)
  • না (8%, ৩ Votes)
  • হ্যা (89%, ৩৩ Votes)

Total Voters: ৩৭

খালেদা জিয়ার মামলা লড়তে বিদেশি আইনজীবীর কোন প্রয়োজন নেই' বিএনপি নেতা আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেনের সাথে - আপনিও কি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ১ Votes)
  • না (27%, ৩ Votes)
  • হ্যা (64%, ৭ Votes)

Total Voters: ১১

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কোনো উপদেশ বা পরামর্শের প্রয়োজন নেই বলে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্য যৌক্তিক বলে মনে করেন কি?

  • মতামত নাই (7%, ১ Votes)
  • হ্যা (20%, ৩ Votes)
  • না (73%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমাদ বলেন, এরশাদকে খুশি করতে বেগম জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের জেলখানায় নেয়া হয়েছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

  • মতামত নাই (8%, ৫ Votes)
  • না (27%, ১৬ Votes)
  • হ্যা (65%, ৩৮ Votes)

Total Voters: ৫৯

আপনি কি মনে করেন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করবে ?

  • না (13%, ৫৪ Votes)
  • হ্যা (87%, ৩৬২ Votes)

Total Voters: ৪১৬

আপনি কি মনে করেন বিএনপির‘র সহায়ক সরকারের রুপরেখা আদায় করা আন্দোলন ছাড়া সম্ভব ?

  • হ্যা (32%, ৪৫ Votes)
  • না (68%, ৯৫ Votes)

Total Voters: ১৪০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি সম্পূর্ণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপরে নির্ভরশীল, এ বিষয়ে অাপনার মন্তব্য কি ?

  • মন্তব্য নাই (7%, ২ Votes)
  • হ্যা (26%, ৭ Votes)
  • না (67%, ১৮ Votes)

Total Voters: ২৭

আপনি কি মনে করেন নির্ধারিত সময়ের আগে আগাম নির্বাচন হবে?

  • মন্তব্য নাই (7%, ১০ Votes)
  • হ্যা (31%, ৪৬ Votes)
  • না (62%, ৯১ Votes)

Total Voters: ১৪৭

হেফাজতকে বড় রাজনৈতিক দল বানানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। আপনি কি তার সাথে একমত?

  • মতামত নাই (10%, ৩ Votes)
  • না (34%, ১০ Votes)
  • হ্যা (56%, ১৬ Votes)

Total Voters: ২৯

“আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে দেশে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা কমে যাবে ”সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সাথে কি অাপনি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ৩ Votes)
  • না (32%, ১১ Votes)
  • হ্যা (59%, ২০ Votes)

Total Voters: ৩৪

আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে যারা সংগঠনের নামে দোকান খুলে বসেছে, তাদের ধরে ধরে পুলিশে দিতে হবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের আপনার প্রতিক্রিয়া কি ?

  • মতামত নাই (7%, ৩ Votes)
  • না (10%, ৪ Votes)
  • হ্যা (83%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৪২

ড্রাইভাররা কি আইনের উর্ধে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • হ্যা (14%, ৭ Votes)
  • না (84%, ৪৩ Votes)

Total Voters: ৫১

সার্চ কমিটিতে রাজনৈতিক দলের কেউ নেই- ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?

  • মতামত নাই (5%, ৩ Votes)
  • হ্যা (31%, ১৭ Votes)
  • না (64%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৫৫

ইসি গঠন নিয়ে রস্ট্রপতির সংলাপ রাজনীতিতে একটি ইতিবাচক মাত্রা আসবে বলে কি আপনি মনে করেন ?

  • মতামত নাই (8%, ৭ Votes)
  • না (34%, ৩২ Votes)
  • হ্যা (58%, ৫৪ Votes)

Total Voters: ৯৩

Do you support DD?

  • yes (0%, ০ Votes)
  • no (100%, ০ Votes)

Total Voters:

How Is My Site?

  • Excellent (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • No Comments (0%, ০ Votes)
  • Good (100%, ০ Votes)

Total Voters: