Tuesday, 26th June , 2018, 05:28 pm,BDST
Print Friendly, PDF & Email

জেনে নিন নিষিদ্ধপল্লীর নারীদের শেষ জীবন কেমন কাটে?



লাস্টনিউজবিডি, ২৬ জুন, ডেস্ক: কিছু কিছু মানুষের জীবনে সুখ যেন অধরাই থেকে যায় আজীবন। এসব মানুষের জীবন শুধুই যাপনের।

নুরজাহান বেগম, বয়স আনুমানিক ৭০ বছর। ধানমন্ডি লেকে ভিক্ষা করেন প্রায় ৭ বছর যাবৎ। থাকেন এই লেকের রাস্তার ধারেই। আপনজনবিহীন এই মানুষটি দিন গুনছেন পরপারে যাবার। আবার নিঃস্ব মানুষটির ২ বছরের সঙ্গী হয়েছে চোখে ছানি। তার জন্ম কুড়িগ্রাম জেলার, উলিপুর উপজেলায় প্রান্তিক এক কৃষক পরিবারে। জন্মের মাত্র ছয় বছরের মাথায় মাকে হারান। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে ঠিকই কিন্তু মায়ের ভালোবাসার পরিবর্তে তার কপালে জোটে অশান্তি।

নুরজাহানের কষ্ট দেখে তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যান খালা। এভাবে আরো কেটে যায় ৮ বছর। ১৪ বছর বয়সে বিয়ে হয়ে যায় তার। কিন্তু বিয়ের ৬ মাসের মাথায় অমানবিক নির্যাতনের শিকার হন যৌতুকের টাকার জন্য। টাকা না পেয়ে নুরজাহানকে দালালের হাতে বিক্রি করে দেন তার স্বামী মাত্র ৮ হাজার টাকার বিনিময়ে। এরপর শুধুই হাত বদলের গল্প, খদ্দের থেকে খদ্দের, দালাল থেকে দালালে। তার কোলজুড়ে জন্ম নিয়েছিল দুটি সন্তান। ছেলে সন্তানের মুখ পর্যন্ত দেখতে দেননি তারা। মেয়ে সন্তান ২ বছর পর্যন্ত তার সঙ্গেই ছিল। তারপর নিঃসন্তান এক দম্পতির কাছে বিক্রি করে দেন দালালরা।

তিনি জানান, আমার বাচ্চাটি বিক্রি করে দিলেও আমি খুশি। কারণ মেয়েটি বাবা পেয়েছে, মা পেয়েছে। এখানে থাকলে আমার মতো কপাল হতো তার। তবে, সন্তানটিকে ২ বছর বয়সে শেষ দেখেছে সে আর দেখবার সৌভাগ্য হয়নি। তার মেয়ে জীবিত আছে না মৃত তাও জানে না সে। এভাবেই চলতে থাকে তার কষ্টের জীবন। দুঃখের জীবন হলেও পেট পুরে খেতে পারতেন তিনি। কিন্তু বয়স বাড়তে থাকে। খদ্দের কমতে থাকে দিন দিন।

এক সময় যখন খদ্দের শূন্য হয়ে পড়েন, তখন ১৯৯৯ সালে মাত্র দু’হাজার টাকা হাতে ধরিয়ে দিয়ে চট্টগ্রামের নিষিদ্ধপল্লী থেকে বের করে দেয়া হয়। এরপর তার জীবন কাটে চট্টগ্রাম রেলবস্তিতে। শুরু করেন চুড়ি, ফিতা বিক্রির ব্যবসা। ভালোই কাটছিলো তার নতুন পথচলা। কিন্তু আবারো বাধা, পূর্বের পেশার কারণে বস্তিতে নানান ধরনের কথার সম্মুখীন হতে হয়। উঠতি বয়সের ছেলেদের চাহিদা পূরণ না করার কারণে চুরির অপবাদ দিয়ে বের করে দেয়া হয় তাকে। এবার চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে শুরু হয় তার ভিক্ষা জীবন।

২০০৮ সালে চলে আসেন রাজধানী ঢাকায়। প্রথম তিন বছর কমলাপুর রেলস্টেশনে কাটলেও এখন তিনি থাকেন ধানমন্ডি লেকে। নিজের বোনের লাশটা পর্যন্ত দাফন করতে পারি নাই বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন প্রায় ৫০ বছর বয়স্ক পলি খাতুন। ভিক্ষা করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে। তিনি জানান, তার বড় বোনের বিয়ের তিন বছর পর দুলাভাই আমাদের পরিবারকে জানান, তার বড় বোন সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেছেন, লাশ পাওয়া যাচ্ছে না।

আমাদের পরিবার থেকে কিছুদিন পর আমার সঙ্গে বিয়ে দেন দুলাভাইয়ের। এর বছরখানেক পর আমাকে বিক্রি করে দেন দৌলতদিয়া নিষিদ্ধপল্লীতে। পল্লীতে গিয়ে জানতে পারি আমার মতো আমার বড় বোনকেও বিক্রি করে দেয়া হয়েছে এই পল্লীতেই। এখানেই কাটতে থাকে দুই বোনের সময়। তবে একদিন এক মাতালের আঘাতে মৃত্যু হয় আমার বড় বোনের। কোনো বিচার তো পায়নি বরং আমার বোনের লাশটা পর্যন্ত দাফন করতে পারিনি। নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হয় লাশ। মোহাম্মদপুরের একটি হোটেলে সবজি কাটার কাজ করেন প্রায় ৫০ বছর বয়সী এক মহিলা।

তিনি জানান, ভোলায় জন্ম তার। বাড়ির উঠান থেকে তুলে নিয়ে এসে বিক্রি করে দেন ঢাকার একটি হোটেলে। চার থেকে পাঁচ দিন মুখে কাপড় বেঁধে শুধু পানি পান করিয়ে রাখা হয়। এক হোটেল থেকে আরেক হোটেলে চলতে থাকে তার ভয়াল জীবন। প্রায় দশ বছর থাকার পর অনেক কষ্টে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন তিনি। বাড়িতে ফিরে গেলেও পরিবার তাকে নিতে অসম্মতি জানায়। বাধ্য হয়ে আবার চলে আসেন ঢাকায়। শুরু করেন পোশাক শ্রমিকের কাজ। তার বিয়ে হয়েছে, ঘরে সন্তান আছে তিনটি।

তবে সবার কপালে এই সৌভাগ্য হয় না। অধিকাংশ মহিলার মানবেতর জীবন কাটে শেষ বয়সে। সেলিনা খাতুন জানান, আমরা যখন নিষিদ্ধপল্লীতে থাকি তখন আমাদের এক ধরনের ট্যাবলেট খাওয়ানো হয়। যার কারণে আমাদের শরীর সুস্থ সবল থাকে। কিন্তু যখন আমাদের পল্লী থেকে বের করে দেয়া হয় তখন আমরা এমনিতেই পড়ি বিপদে আবার ট্যাবলেট না খাওয়ার ফলে ভেঙে পড়তে থাকে শরীর। তাই উপায় না থাকার কারণেই ভিক্ষাবৃত্তিতে জড়াতে হয়। সেলিনা খাতুন ভিক্ষা করেন ধানমন্ডি লেকে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. ফাহমিদা আক্তার বলেন, তাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের হরমোন সেবন করানো হয় এবং সেই সঙ্গে খাওয়ানো হয় শক্তিবর্ধক ও চেতনানাশক ওষুধ। হঠাৎ এই ওষুধগুলো বন্ধ হয়ে যাবার কারণে শরীরে পানি জমা, শক্তি কমে যাওয়া, অনিয়ন্ত্রিত হ্রদ স্পন্দন, চোখে কম দেখা, ক্ষুধা-মন্দা ইত্যাদি সমস্যার সৃষ্টি হয়। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সহযোগিতা থেকে অধরাই থেকে যায় এসব আজন্ম কষ্টের জীবনের বাসিন্দাদের। এদের সকলেই জানান, খুব একটা সহযোগিতা তারা পান না। মাঝে মধ্যে সামান্য পরিমাণ সাহায্য পেলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় সামান্যই।

লাস্টনিউজবিডি/এমবি

Print Friendly, PDF & Email
Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed

diamond world
Rupali bank ltd
exim bank
Lastnewsbd.com
পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
সংবাদ সম্মেলনে কেন এত চাটুকারিতা
।।নঈম নিজাম।। সংবাদ সম্মেলনে একজন সংবাদকর্মীর ক...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
দিল্লীর খাদ্যজাত পন্য মেলায় ভারত-বাংলাদেশ চেম্বারকে অামন্ত্রন
লাস্টনিউজবিডি,৩রা সেপ্টেম্বর,নিউজ ডেস্ক: ট্রেড কাউ...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • মাগুরায় কভার্ডভ্যান চাপায় শ্যালক ও দুলাভাই নিহত
  • তাজহাট থানার ওসির সাথে কমিউনিটি পুলিশিং নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাত
  • কোটচাঁদপুরে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • না (27%, ১৩ Votes)
  • হ্যা (71%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৪৯

অাপনি কি কোটা সংস্কারের পক্ষে ?

  • মতামত নেই (3%, ১ Votes)
  • না (8%, ৩ Votes)
  • হ্যা (89%, ৩৩ Votes)

Total Voters: ৩৭

খালেদা জিয়ার মামলা লড়তে বিদেশি আইনজীবীর কোন প্রয়োজন নেই' বিএনপি নেতা আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেনের সাথে - আপনিও কি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ১ Votes)
  • না (27%, ৩ Votes)
  • হ্যা (64%, ৭ Votes)

Total Voters: ১১

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কোনো উপদেশ বা পরামর্শের প্রয়োজন নেই বলে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্য যৌক্তিক বলে মনে করেন কি?

  • মতামত নাই (7%, ১ Votes)
  • হ্যা (20%, ৩ Votes)
  • না (73%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমাদ বলেন, এরশাদকে খুশি করতে বেগম জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের জেলখানায় নেয়া হয়েছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

  • মতামত নাই (8%, ৫ Votes)
  • না (27%, ১৬ Votes)
  • হ্যা (65%, ৩৮ Votes)

Total Voters: ৫৯

আপনি কি মনে করেন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করবে ?

  • না (13%, ৫৪ Votes)
  • হ্যা (87%, ৩৬২ Votes)

Total Voters: ৪১৬

আপনি কি মনে করেন বিএনপির‘র সহায়ক সরকারের রুপরেখা আদায় করা আন্দোলন ছাড়া সম্ভব ?

  • হ্যা (32%, ৪৫ Votes)
  • না (68%, ৯৫ Votes)

Total Voters: ১৪০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি সম্পূর্ণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপরে নির্ভরশীল, এ বিষয়ে অাপনার মন্তব্য কি ?

  • মন্তব্য নাই (7%, ২ Votes)
  • হ্যা (26%, ৭ Votes)
  • না (67%, ১৮ Votes)

Total Voters: ২৭

আপনি কি মনে করেন নির্ধারিত সময়ের আগে আগাম নির্বাচন হবে?

  • মন্তব্য নাই (7%, ১০ Votes)
  • হ্যা (31%, ৪৬ Votes)
  • না (62%, ৯১ Votes)

Total Voters: ১৪৭

হেফাজতকে বড় রাজনৈতিক দল বানানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। আপনি কি তার সাথে একমত?

  • মতামত নাই (10%, ৩ Votes)
  • না (34%, ১০ Votes)
  • হ্যা (56%, ১৬ Votes)

Total Voters: ২৯

“আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে দেশে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা কমে যাবে ”সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সাথে কি অাপনি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ৩ Votes)
  • না (32%, ১১ Votes)
  • হ্যা (59%, ২০ Votes)

Total Voters: ৩৪

আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে যারা সংগঠনের নামে দোকান খুলে বসেছে, তাদের ধরে ধরে পুলিশে দিতে হবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের আপনার প্রতিক্রিয়া কি ?

  • মতামত নাই (7%, ৩ Votes)
  • না (10%, ৪ Votes)
  • হ্যা (83%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৪২

ড্রাইভাররা কি আইনের উর্ধে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • হ্যা (14%, ৭ Votes)
  • না (84%, ৪৩ Votes)

Total Voters: ৫১

সার্চ কমিটিতে রাজনৈতিক দলের কেউ নেই- ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?

  • মতামত নাই (5%, ৩ Votes)
  • হ্যা (31%, ১৭ Votes)
  • না (64%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৫৫

ইসি গঠন নিয়ে রস্ট্রপতির সংলাপ রাজনীতিতে একটি ইতিবাচক মাত্রা আসবে বলে কি আপনি মনে করেন ?

  • মতামত নাই (8%, ৭ Votes)
  • না (34%, ৩২ Votes)
  • হ্যা (58%, ৫৪ Votes)

Total Voters: ৯৩

Do you support DD?

  • yes (0%, ০ Votes)
  • no (100%, ০ Votes)

Total Voters:

How Is My Site?

  • Excellent (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • No Comments (0%, ০ Votes)
  • Good (100%, ০ Votes)

Total Voters: