Saturday, 30th September , 2017, 10:20 am,BDST
Print Friendly, PDF & Email

নারী বেচাকিনির হাট



লাস্টনিউজবিডি, ৩০ সেপ্টেম্বর, ডেস্ক:  পাঁচ বছরের পিঙ্কি তার দাদী কানকু রোয়াতের পিছনে লুকিয়েছিল। মা তাকে ফেলে যাওয়ার পর ৫৩ বছরের দাদীই তার নির্ভরযোগ্য আশ্রয়। তারা বাস করে রাজস্থানের এক প্রত্যন্ত গ্রামে। একটা ছোট্ট মাটির ঘর, দুটো ছাগল, একটা গরু আর একটা বাছুর এই তাদের সম্পদ। মায়ের কথা মনে নেই পিঙ্কির। বাবা মারা যাওয়ার পরই তাকে ছেড়ে যায় তার মা। বিধবা হওয়ার পর ওই যুবতী নারী যখন ভারতের শত শত বছরের প্রাচীন সংস্কার নাতা প্রথা গ্রহণ করেন তখন পিঙ্কি এক বছরের শিশু।

একজন নারীকে দাসী হিসেবে কিনে নেওয়ার নাম নাতা প্রথা। একজন পুরুষ রীতিমত দেন দরবার করে অর্থের বিনিময়ে একজন নারীকে কিনে নেয়। এরপর তারা স্বামী-স্ত্রীর মত বসবাস করে। যদিও তারা কখনও বিবাহ করে না। দক্ষিণ এশিয়ায় বালি গোত্রই হচ্ছে সর্ববৃহৎ সম্প্রদায় যারা নাতা প্রথার চর্চা করে থাকে। এছাড়া ভারতে রাজস্থান, গুজরাট আর মধ্যপ্রদেশে এই প্রথা প্রচলিত আছে। পিঙ্কির পরিবার ভারতের এই বিল উপজাতির সদস্য।

নাতা প্রথায় একজন নারীকে ২৫ হাজার থেকে শুরু করে ৫০ হাজার ভারতীয় মুদ্রায় বিক্রি করা হয়ে থাকে। সাধারণতঃ ঐতিহ্যবাহী ওই লেনদেন অনুষ্ঠানে সম্প্রদায়ের প্রভাবশালী সদস্য আর দালালরা উপস্থিত থাকেন। তারাই নির্ধারণ করে কত মূল্যে বিকাবে একজন নারী।

এই প্রথায় অংশগ্রহণকারী নারীরা সাধারণত বিবাহিত, তালাকপ্রাপ্ত বা বিধবা হয়ে থাকেন। বিক্রি হওয়ার মেয়েটি তার নতুন মালিকের সঙ্গে তার বাড়িতে চলে যায়। আর পিছনে ফেলে যায় তার পুরনো জীবন, সন্তান ও আপনজনদের। যেমনটা করেছেন পিঙ্কির মা। এ সম্পর্কে তার দাদী কানকু বলেন,‘আমার ছেলে মারা যাওয়ার পর আমার বৌ এই প্রথায় অংশ নেয়। তখন সে মেয়েটিকে ছেড়ে যায়। ইচ্ছে হলে সে ফিরে এসে মেয়ের দায়িত্ব নিতে পারে। তবে এক্ষেত্রে কোনো জোরাজুরি নেই। কয়েক শ’ বছর ধরে আমাদের সম্প্রদায়ের মধ্যে এই রীতি চলে আসছে।’এখন পিঙ্কির মা কোথায় আছে তা তিনি জানেন না। নাতা প্রথা গ্রহণ করার পর মায়ের সঙ্গে তার আর দেখা হয়নি পিঙ্কির।

এটি একটি অমানবিক প্রথা। ভারতে একজন বিধবা নারীর বিয়ে করার অধিকার নাই কোনো কোনো গোত্রে। অথচ গরু ছাগলের মত তাদের বেঁচাকিনি হয়। সবচেয়ে বড় কথা এই প্রথার কারণে নানা বৈষম্যের শিকার হয় পরিত্যক্ত শিশুরা। অনেক সময় স্বজনদের দ্বারাই নানা নির্যাতন সহ্য করতে হয় তাদের। অনেকেই স্কুলে যাওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়। ঘরবাড়ি আর ক্ষেতখামারে কাজ করে তাদের দিন কাটে।

এ প্রসঙ্গে রাজস্থানের সেভ দ্য চিলড্রেন সংস্থার শিশু অধিকার বিষয়ক প্রকল্পের প্রধান রামা কাল্লাসুয়া বলেন,‘আমাদের সম্প্রদায়ে পুনর্বিবাহের রেওয়াজ নেই। তাই বিয়ের বিকল্প হিসেবে গড়ে ওঠেছে এই নাতা প্রথা যা সমাজ কর্তৃক স্বীকৃত। বিয়েতে অনেক খরচ। আর আমাদের সম্প্রদায়ের লোকজন গরীব। তাই খরচ বাঁচাতে আমাদের পূর্ব পুরুষরা এই প্রথাটি চালু করেছিল।’ এই প্রথার মাধ্যমে কেবল বিবাহিতরাই সঙ্গী খুঁজে নিতে পারবেন। তবে বর্তমানে এই প্রথার অপব্যবহার হচ্ছে। কেননা নিয়ম বহির্ভূতভাবে অনেক অবিবাহিতরাও নাতা প্রথায় অংশ নিচ্ছে।

একজন নারী বা পুরুষ কতবার নাতা প্রথা গ্রহণ করতে পারবেন সে বিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। এ কারণে একজন নারী বা পুরুষ যতবার ইচ্ছা ততবার এ প্রথা গ্রহণ করে থাকেন। পুরুষের ক্ষেত্রে তেমন কোনো সমস্যা নেই। তাদের তো আর ছেলেমেয়ে, আত্মীয়স্বজনকে ছেড়ে আসতে হয় না। তারা বরং টাকার বিনিময়ে একজন দাসী কিনে নেয়ার সুযোগ পায়। এই প্রথার মাধ্যমে পুরুষটি যে নারীকে ঘরে তুলে সেই নারী নতুন স্বামীর ঘরসংসার আর সন্তানদের দেখভাল করে থাকে। অন্যদিকে নিজের সন্তানকে চোখে দেখার মত সুযোগও হয় না তার।

অবিবাহিতদের নাতা প্রথায় অংশ নেয়া অবৈধ। কিন্তু আজকাল অনেক অবিবাহিতরাও এই প্রথায় অংশ নিচ্ছেন। হয়তা নিয়ম কানুন সহজ আর পয়সাকড়ি কম খরচ হয় বলেই। আর ভারতে অবিবাহিত মেয়েদের তো পণ ছাড়া বিয়ে হয় না। নাতা প্রথায় গেলে তো তার তেমন কোনো খরচই লাগে না। এইজন্যই আজকাল অনেক কুমারী মেয়েও নাতা প্রথায় অংশ নিচ্ছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে এভাবে বিয়ে হলে যে একজন নারীর অধিকার বলে কিছুই অবশিষ্ট থাকে না। সে তো তখন কেবলই একজন দাসী।

তাই এখন বিল সম্প্রদায়ের শিক্ষিত লোকজন এই প্রথা উচ্ছেদেও জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু তাদের লড়তে হচ্ছে সমাজের প্রভাবশালী আর গোত্র প্রধানদের সঙ্গে যারা এ থেকে আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে থাকে।

তবে আত্মপক্ষ সমর্থন করে বালি সম্প্রদায়ের পঞ্চায়েত সদস্য বংশীলাল খারাদি বলেন, ‘আমি তো এতে খারাপ কিছু দেখছি না। বরং নারী ক্ষমতায়নের পক্ষে কাজ করছে নাতা প্রথা। কেননা এর মাধ্যমে একজন অসুখী নারী স্বামী ছেড়ে অন্য পুরুষকে বেছে নেওয়ার অধিকার পায়।’ তবে এই প্রথার কারণে শিশুরা যে বঞ্চনার স্বীকার হচ্ছে সে বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ভারতে ইউনিসেফের সঙ্গে যৌথভাবে এক গবেষণায় অংশ নিয়েছিল ভাগাদ্রা নামক স্থানীয় এক এনজিও। ওই গবেষণা প্রতিবেদনে দেখা যায়, ৩৫ লাখ উপজাতি শিশুর মধ্যে শতকরা দুই ভাগই নাতা প্রথার কারণে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে যাদের বয়স চার থেকে ১৪’র মধ্যে। গবেষণায় আরো দেখা যায়, যে সব নারীরা এই প্রথা গ্রহণ করে তাদের অধিকাংশই কখনও ছেলেমেয়েদের সঙ্গে দেখা করতে চায় না অথবা তাদের দেখা করতে দেয়া হয় না। এসব শিশুদের ৩৮ ভাগই শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হয়। একই সঙ্গে নানারকম পারিবারিক নির্যাতনের শিকার। মা নাতা প্রথায় যাওয়ার কারণে স্কুলে ও সমাজে অমানবিক গঞ্জনার শিকার হয় ১৩ ভাগ শিশু। এছাড়া মৌখিক বা শারিরীকভাবে নির্যাতনের শিকার হয় আরো ৬ ভাগ। তবে সামাজিক হেনস্থার বিষয়টি সবচাইতে ক্ষতিকর। এর ফলে শতকরা ৫০ ভাগ শিশু কোনো বন্ধু পায় না। তারা চরমভাবে নিঃসঙ্গতায় ভুগে। এই পরিস্থিতির প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়ে শিক্ষা ও মানসিক বিকাশ ও সামাজিক আচরনে।

এইসব কারণে নাতা প্রথার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেছে ভারতের স্থানীয় নেতারা। এটি চিরতরে বন্ধ করে দেয়ার কথাও বলেছেন কেউ কেউ। রাজস্থানের শিশু অধিকার প্রতিরক্ষা রাজ্য কমিশনের প্রধান মানান চতুর্বেদী বলেছেন, ‘আদর, ভালোবাসার মত আবেগীয় সমর্থন না পাওয়ার কারণে নানা রকম সমস্যায় পড়েছে এইসব শিশুরা। রাজ্য, সমাজ ও পরিবারগুলোকে এইসব মাতৃহীন শিশুদের জরুরি ভিত্তিতে দায়িত্ব নিতে হবে।’ পাশাপাশি আদিবাসী নারীদের মধ্যে শিক্ষা ও নাতা প্রথার ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে সচেতনতা তৈরিরও আহ্বান জানান তিনি।

সূত্র: আল জাজিরা

লাস্টনিউজবিডি/এমবি

Print Friendly, PDF & Email
Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed

diamond world
Rupali bank ltd
exim bank
Lastnewsbd.com
পেপার কর্ণার
Lastnewsbd.com
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন >

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

ফলাফল দেখুন

Loading ... Loading ...
আর্কাইভ
মতামত
সংবাদ সম্মেলনে কেন এত চাটুকারিতা
।।নঈম নিজাম।। সংবাদ সম্মেলনে একজন সংবাদকর্মীর ক...
বিস্তারিত
সাক্ষাৎকার
দিল্লীর খাদ্যজাত পন্য মেলায় ভারত-বাংলাদেশ চেম্বারকে অামন্ত্রন
লাস্টনিউজবিডি,৩রা সেপ্টেম্বর,নিউজ ডেস্ক: ট্রেড কাউ...
বিস্তারিত
জেলার খবর
Rangpur

    রংপুরের খবর

  • রানীশংকৈল অনলাইন জার্নালিষ্ট অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃত্বে আকাশ-শাওন
  • দিনাজপুর দক্ষিন জেলা জামায়াতের আমীর আটক
  • সাইকেলে ৬৪ জেলা ভ্রমণ করলেন ঠাকুরগাঁওয়ের আহসান হাবিব

আপনি কি মনে করেন যে কোন পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচন করবে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • না (28%, ১৩ Votes)
  • হ্যা (70%, ৩৩ Votes)

Total Voters: ৪৭

অাপনি কি কোটা সংস্কারের পক্ষে ?

  • মতামত নেই (3%, ১ Votes)
  • না (8%, ৩ Votes)
  • হ্যা (89%, ৩৩ Votes)

Total Voters: ৩৭

খালেদা জিয়ার মামলা লড়তে বিদেশি আইনজীবীর কোন প্রয়োজন নেই' বিএনপি নেতা আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেনের সাথে - আপনিও কি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ১ Votes)
  • না (27%, ৩ Votes)
  • হ্যা (64%, ৭ Votes)

Total Voters: ১১

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কোনো উপদেশ বা পরামর্শের প্রয়োজন নেই বলে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্য যৌক্তিক বলে মনে করেন কি?

  • মতামত নাই (7%, ১ Votes)
  • হ্যা (20%, ৩ Votes)
  • না (73%, ১১ Votes)

Total Voters: ১৫

এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব) অলি আহমাদ বলেন, এরশাদকে খুশি করতে বেগম জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের জেলখানায় নেয়া হয়েছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?

  • মতামত নাই (8%, ৫ Votes)
  • না (27%, ১৬ Votes)
  • হ্যা (65%, ৩৮ Votes)

Total Voters: ৫৯

আপনি কি মনে করেন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করবে ?

  • না (13%, ৫৪ Votes)
  • হ্যা (87%, ৩৬২ Votes)

Total Voters: ৪১৬

আপনি কি মনে করেন বিএনপির‘র সহায়ক সরকারের রুপরেখা আদায় করা আন্দোলন ছাড়া সম্ভব ?

  • হ্যা (32%, ৪৫ Votes)
  • না (68%, ৯৫ Votes)

Total Voters: ১৪০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের বিষয়টি সম্পূর্ণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপরে নির্ভরশীল, এ বিষয়ে অাপনার মন্তব্য কি ?

  • মন্তব্য নাই (7%, ২ Votes)
  • হ্যা (26%, ৭ Votes)
  • না (67%, ১৮ Votes)

Total Voters: ২৭

আপনি কি মনে করেন নির্ধারিত সময়ের আগে আগাম নির্বাচন হবে?

  • মন্তব্য নাই (7%, ১০ Votes)
  • হ্যা (31%, ৪৬ Votes)
  • না (62%, ৯১ Votes)

Total Voters: ১৪৭

হেফাজতকে বড় রাজনৈতিক দল বানানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার। আপনি কি তার সাথে একমত?

  • মতামত নাই (10%, ৩ Votes)
  • না (34%, ১০ Votes)
  • হ্যা (56%, ১৬ Votes)

Total Voters: ২৯

“আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিলে দেশে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা কমে যাবে ”সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সাথে কি অাপনি একমত ?

  • মতামত নাই (9%, ৩ Votes)
  • না (32%, ১১ Votes)
  • হ্যা (59%, ২০ Votes)

Total Voters: ৩৪

আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে যারা সংগঠনের নামে দোকান খুলে বসেছে, তাদের ধরে ধরে পুলিশে দিতে হবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের আপনার প্রতিক্রিয়া কি ?

  • মতামত নাই (7%, ৩ Votes)
  • না (10%, ৪ Votes)
  • হ্যা (83%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৪২

ড্রাইভাররা কি আইনের উর্ধে ?

  • মতামত নাই (2%, ১ Votes)
  • হ্যা (14%, ৭ Votes)
  • না (84%, ৪৩ Votes)

Total Voters: ৫১

সার্চ কমিটিতে রাজনৈতিক দলের কেউ নেই- ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?

  • মতামত নাই (5%, ৩ Votes)
  • হ্যা (31%, ১৭ Votes)
  • না (64%, ৩৫ Votes)

Total Voters: ৫৫

ইসি গঠন নিয়ে রস্ট্রপতির সংলাপ রাজনীতিতে একটি ইতিবাচক মাত্রা আসবে বলে কি আপনি মনে করেন ?

  • মতামত নাই (8%, ৭ Votes)
  • না (34%, ৩২ Votes)
  • হ্যা (58%, ৫৪ Votes)

Total Voters: ৯৩

Do you support DD?

  • yes (0%, ০ Votes)
  • no (100%, ০ Votes)

Total Voters:

How Is My Site?

  • Excellent (0%, ০ Votes)
  • Bad (0%, ০ Votes)
  • Can Be Improved (0%, ০ Votes)
  • No Comments (0%, ০ Votes)
  • Good (100%, ০ Votes)

Total Voters: